বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Sickness Before Period: পিরিয়ডের আগে কি দুর্বলতা, মুড সুইংয়ের সঙ্গে অসুস্থতাও জাঁকিয়ে বসে? বিশেষজ্ঞরা দিচ্ছেন পরামর্শ
পিরিয়ডের আগে জ্বরজ্বর ভাব আসা নিয়ে কী বলছেন চিকিৎসকরা?
পিরিয়ডের আগে জ্বরজ্বর ভাব আসা নিয়ে কী বলছেন চিকিৎসকরা?

Sickness Before Period: পিরিয়ডের আগে কি দুর্বলতা, মুড সুইংয়ের সঙ্গে অসুস্থতাও জাঁকিয়ে বসে? বিশেষজ্ঞরা দিচ্ছেন পরামর্শ

  • এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে সমস্ত মহিলাদের অ্যাস্থামার সমস্যা রয়েছে, তাঁদের মধ্যে ১৯ থেকে ৪০ শতাংশ মহিলার অ্যাস্থমার সমস্যা বেড়ে যায় পিরিয়ডের আগে। অনেকেই বলছেন, পিরিয়ডের আগে শরীরে বিভিন্ন ব্যথার পরিমাণও বেড়ে যেতে থাকে।

বহু মহিলাই অনুভব করেন পিরিয়ড বা ঋতুস্রাব শুরুর ঠিক আগে একটা অসুস্থতা দানা বাঁধে শরীরে। পিরিয়ডের আগে মুড সুইং নিয়েও থাকে তাঁদের একাধিক প্রশ্ন। এছাড়াও পিরিয়ড শুরুর ঠিক আগের কয়েকদিনে দেখা যায় শারীরিক দুর্বলতা , আসে শারীরিক নানান অস্বস্তি। এই নিয়ে উঠে এসেছে বেশ কয়েকটি গবেষণা। এছাড়াও দেখা গিয়েছে বিষয়টিতে আলোকপাত করছেন চিকিৎসকরা।

পিরিয়ডের কয়েকদিন আগেই একটু গায়ে জ্বরজ্বর ভাব, হাতে পায়ে ব্যথা অনেকেই অনুভব করে থাকেন। নারীরোগ বিশেষজ্ঞ শিরাজিয়া তারানহে বলছেন, এই পিরিয়ড ফ্লু কোনও প্যাথাজিওন থেকে হয় না। তিনি বলছেন, শরীরের স্বাভাবিক প্রদাহের প্রতি শররের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার জবাবের ওপর নির্ভর করে যে পিরিয়ডের আগে একজন মহিলা কতটা দুর্বল হয়ে পড়বেন সেই বিষয়টি। প্রদাহকে কীভাবে একজন মহিলার শরীর গ্রহণ করছে তার ওপর নির্ভর করে এটি। ওভিউলেশনের আগে লিউটিনাইজিং হরমোন বেড়ে যায়, আর হঠাৎ করেই তা পিরিয়ডের আগে কমে যায়। চিকিৎসক বলছেন, এই কারণেই বহু মহিলার বমিভাব আসে এই সময়, দেখা দেয় মাথা ঘোরা বা মাথার যন্ত্রণা। এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে সমস্ত মহিলাদের অ্যাস্থামার সমস্যা রয়েছে, তাঁদের মধ্যে ১৯ থেকে ৪০ শতাংশ মহিলার অ্যাস্থমার সমস্যা বেড়ে যায় পিরিয়ডের আগে। অনেকেই বলছেন, পিরিয়ডের আগে শরীরে বিভিন্ন ব্যথার পরিমাণও বেড়ে যেতে থাকে। আর এই সমস্তই নির্ভর করে রয়েছে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর। আরও পড়ুন-আঁটি চুষে আম খাচ্ছেন! খাওয়ার আগে এই কাজটি করলে সুস্থ থাকবে শরীর, ত্বক হবে সুন্দর

পায়ের কড়ার যন্ত্রণায় হাঁটতে কষ্ট হচ্ছে? এই সহজ ঘরোয়া উপায়গুলি দেবে স্বস্তি

এছাড়াও পিরিয়ডের ঠিক আগে থেকে অনেকেরই মুড সুইংয়ের সমস্যা দেখা দেয়। এর কারণ হিসাবে বিশেষজ্ঞরা স্ত্রী হরমোনকেই দায়ী করেন। জানা যায়, মাসের বিভিন্ন সময়ে মহিলাদের শরীরে বিভিন্ন পর্যায়ে ও পরিমাণে স্ত্রী হরমোন নিঃসরণ হয়। পিরিয়ডের ঋতুস্রাব পর্ব শেষ হলে ইস্ট্রোজেনের নিঃসরণ অল্প অল্প করে বাড়তে থাকে। এরপর ১৪ থেকে ১৫ দিনের মাথায় তা বেড়ে যায় আরও। সেই সময় ওভ্যিউলেশন হয়। তারপর এই নিঃসরণ কমতে থাকে। ইস্ট্রোজেনের এই নিঃসরণের উত্থান পতনেই মহিলাদের মুড সুইংয়ের অন্যতম কারণ। ফলে পিরিয়ডের আগে মুড সুইং সেভাবে বড়সড় উদ্বেগের কারণ নয়, যদি না তা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যায়। সেভাবেই পিরিয়ডের আগে দুর্বল লাগা বা অসুস্থ হয়ে পড়াও কোনও বড় ইস্যু নয়, যদি না সেই দুর্বলতা খুব বড় আকার নিতে থাকে।

বন্ধ করুন