বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > History of Kite flying: বিশ্বকর্মা পুজোর দিন ঘুড়ি ওড়ানো হয় কেন? জেনে নিন, এর ইতিহাস
বিশ্বকর্মা পুজোর দিন ঘুড়ি ওড়ানোর ইতিহাস

History of Kite flying: বিশ্বকর্মা পুজোর দিন ঘুড়ি ওড়ানো হয় কেন? জেনে নিন, এর ইতিহাস

  • Kite Flying on Vishwakarma Puja: তারপর বিশ্বকর্মা পুজোর দিন ঘুড়ি ওড়ানোর জন্য তৈরি তো? পেটকাটি, চাদিয়াল তৈরি? কিন্তু এদিন ঘুড়ি ওড়ানোর ইতিহাস জানেন?

সেপ্টেম্বরের ১৭ তারিখ পালিত হয় বিশ্বকর্মা পুজো। আর এই পুজোর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে ঘুড়ি ওড়ানোর রীতি। দুপুর থেকে বিকেলে আকাশে উড়তে থাকে রং বেরঙের নানান ঘুড়ি। এই দিন কত ধরণের যে ঘুড়ি দেখা যায় আকাশে তার ঠিকানা নেই। ঘুড়ির আবার কত নাম, পেটকাটি, ছাদিয়াল, ময়ূরপঙ্খী, ইত্যাদি। যাই হয়ে যাক না কেন এদিন আকাশে ঘুড়ির দেখা মিলবেই। আগে যেমন হামেশাই আকাশে ঘুড়ির লড়াই দেখা যেত, এখন এই দিনটিতেই মূলত ঘুড়ি উড়তে দেখা যায়।

যে বছর এই দিন আকাশের মুখ ভার থাকে, বৃষ্টি হয় সেদিন বাড়ির কচিকাঁচাদের মুখ ভার হয়ে যায়। বৃষ্টিতে কি আর ঘুড়ি ওড়ানো যায়? কিন্তু আপনি কি জানেন কেন এই দিনটিতে ঘুড়ি ওড়ানোর রীতি আছে?

বিশ্বকর্মা ঈশ্বরদের জন্য তৈরি করেছিলেন উড়ন্ত রথ। সেই রথের কথা স্মরণ করেই এদিন আকাশে ঘুড়ি ওড়ানো হয়ে থাকে। আগে একটু জেনে নেওয়া যাক দেব বিশ্বকর্মার বিষয়ে।

পুরাণ মতে, বিশ্বকর্মা হলেন দেবলোকের কারিগর। অন্যদিকে ঋগবেদ অনুসারে তিনি হলেন স্থাপত্য এবং যন্ত্রবিজ্ঞান বিদ্যার জনক। তিনিই নাকি কৃষ্ণের বাসস্থান দ্বারকা নগরী তৈরি করে দিয়েছিলেন। শ্রমিক থেকে ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য এই দিনটি ভীষণই জরুরি। আর এই দিনে বহু বছর ধরেই বাংলার আকাশে ঘুড়ি ওড়ানোর রীতি আছে।

১৮৫০ সাল থেকে বাংলায় বিশ্বকর্মা পুজোর দিন আকাশে ঘুড়ি ওড়ানোর প্রচলন শুরু হয়। বাংলার বেশ কিছু ব্যবসায়ী নিজেদের অর্থ এবং প্রতিপত্তি দেখানোর জন্য এদিন ঘুড়ির সঙ্গে টাকা বেঁধে আকাশে ওড়াতেন। এমনটাও শোনা যায় যে জমিদার থেকে রাজারা নাকি টাকা দিয়েই এক একটা আস্ত ঘুড়ি বানিয়ে ফেলতেন!

একটা সময় বর্ধমান রাজবাড়িতেও ঘুড়ি ওড়ানোর চল ছিল। বর্ধমানের রাজারা নাকি পাঞ্জাব থেকে এসেছিলেন। আর পাঞ্জাবে ঘুড়ির উৎসব বেশ জনপ্রিয় ছিল। আর সেই কারণেই বর্ধমান রাজাদের হাত ধরেই বাংলায় ঘুড়ির উৎসবের চল শুরু হয়। বিশ্বকর্মা পুজোর দিন তো রীতিমত ঘুড়ির লড়াই বেঁধে যায়। তাই তো এদিন বাইরে কান পাতলেই শোনা যায় ভোকাট্টা শব্দের চিৎকার।

বন্ধ করুন