বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > বাথরুমেও মোবাইল ব্যবহার করার অভ্যাস? জানুন কী ক্ষতি করছেন নিজের

বর্তমান সময়ে একটা মুহূর্তও যেন মুঠওফোন ছাড়া কল্পনা করা যায় না। ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপ, ইনস্টাগ্রামের হাতছানি ভোলা কি এত সহজ! পাশাপাশি আবার আজকাল যোগ হয়েছে OTT প্ল্যাটফর্মগুলো। পছন্দের শো দেখা যায় মুঠোফোনেই। ব্যস! বাথরুম থেকে শুুরু করে ডাইনিং টেবিল, সর্বত্রই সঙ্গী এটি।  তবে, আপনার মনোরঞ্জন করছে ঠিকই, সঙ্গে বাথরুমে মোবাইল ব্যবহার ক্ষতি করছে আপনার স্বাস্থ্যেরও। 

মোবাইলের কভার রাবারের তৈরি। সেখানে বাসা বাঁধে যাবতীয় ক্ষতিকর ভাইরাস ও ব্যাকটিরিয়া। আর বাথরুমের ফ্লাশ, কল বা দরজার লক ব্যবহারের পর মোবাইলের স্ক্রিনে হাত দিলে সেখানেও জন্মাতে পারে সালমোনেল্লার মতো ভয়ানক ব্যাকটিরিয়া। যা থেকে হতে পারে টাইফয়েডের মতো রোগ।

মোবাইলের স্ক্রিনে থাকা ব্যাকটেরিয়া আপনার কান, মুখ, নাক, চোখে প্রবেশ করতে পারে সহজেই। এমনিতেই ভিজে পরিবেশে ব্যাকটিরিয়া দ্রুত বংশবৃদ্ধি করে। তাই টয়লেটের যেখানে-সেখানে মোবাইল রাখা মানেই তাতে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ। এবার মোবাইলের স্ক্রিনে থাকা ব্যাকটেরিয়া আপনার হাতের মাধ্যমে আপনার সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারণ, ফোন আমরা খাবার টেবিল থেকে বিছানা সর্বত্রই রাখি। তাই বাথরুমে মোবাইল না নিয়ে যাওয়াই ভালো। 

আরও একটা বড় ভয় হল মোবাইল অনবরত ব্যবহারের ফলে তাঁর তাপমাত্রা এমনিতেই বেশি থাকে। আর এই তাপমাত্রা ব্যাকটেরিয়াদের সাহায্য করে দ্রুত বংশবৃদ্ধি করতে। মানে বুঝতে পারছেন, এতদিন সব জায়গায় কীভাবে মোবাইলে করে ব্যাকটেরিয়া নিয়ে ঘুরেছেন! তাই আজই ত্যাগ করুন এই অভ্যাস। সঙ্গে মোবাইল রোজ স্যানেটাইজার দিয়ে মুছে নিন।

বন্ধ করুন