বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > জোয়ানের ক্কাথ দূর করবে সর্দি-কাশি, মজবুত করবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা
জোয়ানে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি, অ্যান্টি ব্যাক্টিরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল গুণ বর্তমান।
জোয়ানে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি, অ্যান্টি ব্যাক্টিরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল গুণ বর্তমান।

জোয়ানের ক্কাথ দূর করবে সর্দি-কাশি, মজবুত করবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

  • জোয়ানের ক্কাথ পান করলে ৪-৫ দিনের মধ্যে ফ্লুর হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন। পাশাপাশি এটি ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও মজবুত করবে।

স্বাস্থ্যকর খাওয়া-দাওয়া, ওয়ার্কআউট ও পর্যাপ্ত ঘুম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে মজবুত করে। এ ছাড়াও কিছু এমন উপায়ও আছে, যা ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মজবুত করতে সাহায্য করে। এই উপকরণগুলির মধ্যে অন্যতম হল জোয়ান। জোয়ানের ক্কাথ পান করলে ৪-৫ দিনের মধ্যে ফ্লুর হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন। পাশাপাশি এটি ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও মজবুত করবে। 

গুণে সমৃদ্ধ জোয়ান

জোয়ান পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। এটি শরীরকে সুস্থ ও ফিট রাখতে সাহায্য করে। এতে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি, অ্যান্টি ব্যাক্টিরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল গুণ বর্তমান। এটি সর্দি-কাশি সাড়াতে উপযুক্ত।

জোয়ানের ক্কাথ তৈরির উপকরণ

  • আধ চামচ জোয়ান
  • ৫টি তুলসী পাতা
  • ১/২ চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো
  • ১ বড় চামচ মধু

প্রণালী

একটি সসপ্যানে এক গ্লাস জল, জোয়ান, গোলমরিচ ও তুলসীর পাতা মেশান। এর পর ৫ মিনিট ফুটতে দিন। এর পর গ্যাস বন্ধ করে এতে মধু মিশিয়ে নিন। ঠান্ডা হওয়ার পর ফের ভালোভাবে মিশিয়ে এই ক্কাথ পান করুন।

উপকারিতা

এমনিতেই জোয়ান নানান পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। এতে গোলমরিচ, তুলসী ও মধু মিশিয়ে ক্কাথ তৈরি করলে এঁর গুণ বহুলাংশে বৃদ্ধি পায়। ফ্লু থেকে মুক্তি দেওয়ার পাশাপাশি আরও যে সমস্যা থেকে ক্কাথ মুক্তি দিতে পারে তা হল—

  • পেটের সমস্যা থেকে মুক্তি।
  • সর্দি-কাশি থেকে স্বস্তি।
  • মাড়ির ফোলাভাব কমানো।
  • ঋতুস্রাবের ব্যথা কমানো।
  • পিম্পল দূর করা।

যে বিষয়গুলি লক্ষ্য রাখবেন

একদিনে অধিক পরিমাণে জোয়ান খেলে হীতে বিপরীত হতে পারে। এর ফলে স্বাস্থ্যে কুপ্রভাব পড়তে পারে। তাই দিনে একবার এই ক্কাথ পান করুন। আবার গর্ভবতী ও যে মা স্তনদুগ্ধ পান করিয়ে থাকেন, তাঁরা এই ক্কাথ পান করবেন না।

Disclaimer- এই প্রতিবেদনে প্রদত্ত তথ্যের যথার্থতা ও বাস্তবিকতা সুনিশ্চিত করার যথাসম্ভব চেষ্টা করা হয়েছে। তবে এর নৈতিক দায়িত্ব হিন্দুস্থান টাইমস বাংলার নয়। তাই পাঠকদের কাছে আবেদন জানানো হচ্ছে, যে কোনও উপায় অবলম্বনের পূর্বে যথাযথ সাবধানতা অবলম্বন করবেন। প্রয়োজনে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পিছ পা হবেন না। আপনাদের তথ্য সমৃদ্ধ করাই আমাদের উদ্দেশ্য।

বন্ধ করুন