বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > ‘নতুন’ মায়ের সমস্যা, জলদি ফিরে আসুন আগের জীবনে
হাসিখুশি থাকাই ভালো থাকার চাবিকাঠি
হাসিখুশি থাকাই ভালো থাকার চাবিকাঠি

‘নতুন’ মায়ের সমস্যা, জলদি ফিরে আসুন আগের জীবনে

মা হওয়া নিসন্দেহে সুখের অনুভূতি। কিন্তু পাশাপাশি চ্যালেঞ্জিংও। বিশেষ করে মা হওয়ার প্রথম ধাপে সবেইকেই কিছু না কিছু সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। অবশ্য একটু চেষ্টা করলেই তা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব।

মা হওয়া একজন নারীর কাছে যতটা খুশির খবর, ঠিক ততটাই চিন্তারও। সিজার হোক বা নরমাল ডেলিভারি, প্রসব পরবর্তী অবস্থায় একজন নারীর শরীরে নানা পরিবর্তন আসে। এমনকী, একদম প্রথম দিকে একজন ‘নতুন মা’ বেশকিছু সমস্যারও মুখোমুখি হতে পারেন। দেখে নিন কীভাবে মোকাবিলা করবেন সেই সব সমস্যার।

 

বিশ্রাম নিন

প্রসব পরবর্তী অবস্থায় শরীরের ধকল কাটিয়ে ওঠার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বিশ্রাম। কিন্তু নতুন মায়ের পক্ষে সেটাই সবচেয়ে মুশকিল হতে পারে। ৬-৭ মাস অবধি অনেক বাচ্চাই রাতে ঘুমোতে চায় না। সেক্ষেত্রে ঘুম হয় না মায়েদেরও। তাই অবশ্যই বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের সাহায্য নিন। রাতে শিশুকে তাদের কাছে রেখে ঘুমিয়ে নিন। এমনকী, দিনে শিশুর ঘুমনোর সময়ে মোবাইল বা টিভিতে মন না দিয়ে, নিজেও ঘুমিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন।

 

মন খুলে কথা বলুন

প্রসব পরবর্তী অবস্থায় অনেকেই অবসাদের সম্মুখীন হন। মূলত হরমোনাল ইমব্যালেন্সের জন্যই এমনটা হয়ে থাকে। এর থেকে বের হওয়ার একটাই উপায়- চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া। পাশাপাশি মনের মধ্যে তৈরি হওয়া উৎকন্ঠা বাড়ির অন্যান্য সদস্য বা স্বামীকে খুলে বলুন। কাছের বন্ধুকেও বলতে পারেন। সঠিক চিকিৎসা ও ওষুধে ৩-৪ মাসের মধ্যেই এই সমস্যা কাটিয়ে ফেলা সম্ভব।

 

দুশ্চিন্তা কমান

সন্তানকে নিজের সেরাটা দিতে চান সব বাবা-মা। তবে তা নিয়ে অধিক চিন্তা করে, মানসিক দিক থেকে নিজেকে বিপর্যস্ত করে না তোলাই ভালো। শিশুর ঠান্ডা লাগলে বা শিশু পড়ে গেলে অনেক মা-ই নিজেদের দোষ দেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে যত দিন যাবে, আপনার অভিজ্ঞতাই সাহায্য করবে আপনাকে শিখতে।

 

‘মি’ টাইম

গর্ভাবস্থা বা প্রসবের পরে অনেকেরই ওজন বেশি বেড়ে যায়। আর তা নিয়ে শুরু হয় হীনমন্যতা। চোখের তলার কলি, মুখের ব্রণ, শরীরের বাড়তি চর্বি নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই. বরং চেষ্টা করতে হবে নিজের জন্য সময় বের করতে। সপ্তাহে এক ঘণ্টা হোক মি টাইম। এমন কিছু করুন যা আপনাকে আনন্দ দেয়। ত্বকের যত্ন নিন। চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ২-৩ মাস বাদে যোগা ও শরীরচর্চাও শুরু করতে পারেন।

বন্ধ করুন