বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > International Literacy Day: আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসের ইতিহাস জানেন? কিংবা এর গুরুত্ব কী
আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসের ইতিহাস

International Literacy Day: আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসের ইতিহাস জানেন? কিংবা এর গুরুত্ব কী

  • International Literacy Day: বিশ্ব জুড়ে ৮ সেপ্টেম্বর পালিত হয় আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস। কিন্তু কেন পালিত হয় এই দিন, এর গুরুত্বই বা কী জানেন? আসুন দেখে নেওয়া যাক।

গত দুই বছর ধরে করোনার কারণে শিশু থেকে কিশোর কিংবা যুবকদের শিক্ষা ভীষণই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৭৭৩ মিলিয়ন মানুষ আজও নিরক্ষর। তার মধ্যে করোনা এসে সব ঘেঁটে দিল। কত শিশু যে শিক্ষার আলো থেকে ছিটকে গেল, অশিক্ষার অন্ধকারে ডুবে গেল তার ইয়ত্তা নেই। তবুও চেষ্টা করা হচ্ছে যাতে এই বিপদের সময়েও যাতে বিভিন্ন উপায়ে সকলের কাছে শিক্ষার আলো পৌঁছিয়ে দেওয়া যায়।

সাস্টেনেবল ডেভেলপমেন্টের জন্য শিক্ষা ভীষণ জরুরি। এটা মানুষকে নিজের পায়ে দাঁড়াতে সাহায্য করে এবং তাঁদের জীবনধারাকে উন্নত করে। সাস্টেনেবল ডেভেলপমেন্টের অন্যতম লক্ষ্য হল শিক্ষার অন্যতম অঙ্গ হিসেবে স্বাক্ষরতাকে দেখা।

আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস প্রতি বছর ৮ সেপ্টেম্বর পালন করা হয়ে থাকে। এই দিনটি পালন করার মূল উদ্দেশ্য হল সকলের জন্য স্বাক্ষরতা কতটা জরুরি, সমাজ, গোষ্ঠী সকলের উন্নতির জন্য স্বাক্ষরতা কেন প্রয়োজন সেটা বোঝানো।

আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবসের ইতিহাস কী?

১৯৯৬ সালে ২৬ অক্টোবর ইউনেস্কো ঘোষণা করে যে প্রতি বছর ৮ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস পালন করা হবে যাতে বিশ্ব জুড়ে স্বাক্ষরতা সংক্রান্ত যত সমস্যা আছে সেগুলো দূর করা যায়। শুধু সমস্যা দূর করাই নয়, একই সঙ্গে সকলকে এটা বোঝানোর জন্যও এই দিনটি পালন করা হয় যে শিক্ষা এবং স্বাক্ষর হওয়া কেন প্রয়োজন। শিক্ষাকে মানুষকে আত্মনির্ভর করে তোলে, নিজের পায়ে ভালো ভাবে দাঁড়াতে সাহায্য করে সেটা বোঝায়। কিন্তু এই দিনটির ভাবনার প্রথম বীজটি বপন হয়েছিল ১৯৬৫ সালের ওয়ার্ল্ড কনফারেন্স অব মিনিস্টার্স অব এডুকেশনে যেখানে নিরক্ষরতা দূরীকরণ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছিল। এই সভাটি আয়োজিত হয়েছিল তেহরানে।

এই দিনের গুরুত্ব কী?

ইউনেস্কো গোটা বিশ্ব জুড়ে নিরক্ষরতা দূর করে স্বাক্ষরতা এবং শিক্ষার হার বাড়ানোর দিকটা খেয়াল রাখে। আর সেই কারণেই ইউনেস্কোর তরফে এই দিনটির প্রচার করা হয়। বিভিন্ন সরকার, সমাজসেবী সংগঠন, ইত্যাদির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ইউনেস্কো এই দিনটি পালন করার জন্য একাধিক উদ্যোগ নিয়ে থাকে। তাই তো বিভিন্ন বছর বিভিন্ন ধরনের থিম নিয়ে এই বিষয়টির উপর সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয় এবং শিক্ষা ও স্বাক্ষরতার গুরুত্ব বোঝানো হয়ে থাকে, কারণ এই দুটো ছাড়া কোনও রকমের উন্নয়ন সম্ভব নয়। শিক্ষাই আমাদের জীবন এবং জীবনধারাকে পাল্টাতে পারে, তাই তো ইউনেস্কো বলে, স্বাক্ষরতাই হল সব থেকে ভালো সমাধান।

আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস কেন পালন করা হয়ে থাকে?

এই দিনটি মূলত সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ আকর্ষণ করার জন্যই পালন করা হয়ে থাকে। সকলকে এই দিনটির মাধ্যমে বোঝানো হয় শিক্ষা এবং স্বাক্ষরতার গুরুত্ব, এবং এটা কীভাবে মানুষকে তাঁর সামাজিক অধিকার এবং হিউম্যান রাইটস পেতে সাহায্য করে। একই সঙ্গে স্বাক্ষরতার হার বাড়া মানেই দারিদ্র, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ, লিঙ্গ বৈষম্য দূর করা বা সেই দিকে এগোনো।

ইউনেস্কো নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যাতে বিশ্ব জুড়ে নিরক্ষরতার অন্ধকার দূর করা যায়। পৃথিবীর কোনায় কোনায় শিক্ষার আলো পৌঁছে দেওয়া যায়।

বন্ধ করুন