বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Male above 40: বয়স ৪০ পেরিয়েছে? বিপদকে আরও ৪০ বছর দূরে ঠেলতে এখন থেকেই কী কী করবেন

Male above 40: বয়স ৪০ পেরিয়েছে? বিপদকে আরও ৪০ বছর দূরে ঠেলতে এখন থেকেই কী কী করবেন

সুস্থ জীবন কে না চায়! (Unsplash)

Male above 40 should be concerned about the possible diseases: বয়স বাড়লে শরীরের সম্পর্কে সচেতন হওয়াও জরুরি। অসুখবিসুখ এড়াতে এই সময় বেশ কয়েকটি নিয়ম মেনে চলা উচিত। এতে রোগেরও বাড়বাড়ন্ত হয় না।

বয়স বাড়লে শরীরে নানারকম রোগই দেখা দিতে পারে। একটা সময়ের পর দেখা যায়, কোনও না কোনও শারীরিক সমস্যা লেগেই রয়েছে। তবে রোজকার কাজের চাপ সামলে শরীরের দিকে সবসময় খেয়াল রাখা সম্ভব হয় না। বিশেষজ্ঞদের কথায়, একটা বয়সের পর পুরুষদের মধ্যে সাধারণ ক্রণিক রোগ থেকে গুরুতর রোগ যেমন ক্যানসারও হতে পারে। তবে প্রতিদিনের কিছু অভ্যাসের কারণেই এই গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে। চিকিৎসকের কথায়, বয়স ৪০ পেরোলে কিছু বিষয় নিয়মিত মেনে চলা উচিত। এতে আখেরে লাভই হয়। এমনকী অনেক গুরুতর রোগও অনেক কম বয়সে ধরা পড়ে। ফলে সঠিক সময়ে চিকিৎসার মাধ্যমে সেরে ওঠা সম্ভব হয়।

১. পারিবারিক চিকিৎসক দেখানো: পারিবারিক চিকিৎসকের সঙ্গে একটা সময়ের পর থেকে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা উচিত বলেই মন করেন বিশেষজ্ঞরা। অতিরিক্ত খরচের ভয়ে অনেকেই এই পরামর্শটি এড়িয়ে চলেন। তবে আখেরে এতে লাভই হয়। ক্যানসারের মতো মারাত্মক রোগও এর ফলে গোড়াতেই ধরা পড়ে। ফলে গুরুতর চিকিৎসার অত্যাধিক খরচও অনেকটা এড়ানো সম্ভব হয়।

২. প্রতি বছরে শারীরিক পরীক্ষা: প্রতি বছর নিয়মিত কিছু শারীরিক পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া জরুরি। এতে কোন গুরুতর রোগ বাসা বাঁধতে শুরু করলে তা আগে থেকেই ধরা পড়ে যায়। বিশেষজ্ঞদের কথায়, বেশ কয়েকটি মারাত্মক রোগের কোনও লক্ষণ আগে থেকে দেখা যায় না, একমাত্র নিয়মিত বৈজ্ঞানিক পরীক্ষার মাধ্যমেই সেই রোগগুলি নির্ণয় করা সম্ভব।

৩. স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন: প্রতি বছর নিয়মিত পরীক্ষা করানো ও পারিবারিক চিকিৎসককে দেখানোর পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করাও জরুরি। এর জন্য রোজকার ডায়েট থেকে অস্বাস্থ্যকর তেলে রান্না করা খাবার দূরে রাখতে হবে। এর পাশাপাশি খাবারে ফাইবারের পরিমাণও বেশি রাখা উচিত। এর পাশাপাশি স্যাচুরেটেড ফ্যাটও বাদ রাখতে হবে খাদ্য তালিকা থেকে। চিকিৎসকের কথায়, এই ধরনের ফ্যাট ও খারাপ কোলেস্টরল হৃদরোগের জন্য দায়ী। স্বাস্থ্যকর খাবারের ডায়েট মেনে চললে ডায়াবিটিস ও হৃদরোগের সমস্যা দূরে থাকে।

৪. প্রতিদিন নিয়মিত ঘুম: প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় ধরে ঘুমোনো শরীর ভালো রাখার জন্য প্রয়োজন। এতে স্ট্রেসের পরিমাণও অনেকটা কমে যায়। স্ট্রেস থেকে গুরুতর রোগ দেখা দিতে পারে।

 

বন্ধ করুন