বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Covid-19 JN.1: ভারতে বাড়ছে নতুন করোনা, JN.1 সম্পর্কে কোন ১০টি পয়েন্ট এখনই জেনে রাখা দরকার

Covid-19 JN.1: ভারতে বাড়ছে নতুন করোনা, JN.1 সম্পর্কে কোন ১০টি পয়েন্ট এখনই জেনে রাখা দরকার

নতুন কোভিড সম্পর্কে কোন ১০টি পয়েন্ট মনে রাখতেই হবে?

Covid-19 variant JN.1: গুরুগ্রামে JN.1 ভ্যারিয়েন্টের আরও দু’টি সংক্রমণ সনাক্ত করা হয়েছে, যার ফলে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হাসপাতালগুলিকে আইসোলেশন ওয়ার্ড স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন।

কোভিড-১৯ আবার ব্যাপক মাত্রায় ফিরে আসার সঙ্গে সঙ্গে বেশ কয়েকটি রাজ্য জনগণকে করোনাভাইরাস প্রোটোকল অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভারতে মোট ১০৯ টি JN.1 কোভিড ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) JN.1-কে দুশ্চিন্তায় ফেলা কোভিড-১৯-এর রূপ হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করেছে, যা এর মূল রূপ BA.2.86-এর থেকে পৃথক। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জোর দিয়ে বলেছে যে বর্তমান প্রমাণের ভিত্তিতে JN.1 দ্বারা সৃষ্ট সামগ্রিক ঝুঁকির পরিমাণ কমই রয়েছে।

এবার এই সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে জেনে নিন গুরুত্বপূর্ণ ১০টি আপডেট।

১. গুজরাটে JN.1 ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, ১০৯ টি JN.1 কোভিড ভ্যারিয়েন্টে গুজরাটে ৩৬ জন, কর্নাটকে ৩৪ জন, গোয়ায় ১৪ জন, মহারাষ্ট্রে ৯ জন, কেরালায় ৬ জন, রাজস্থানে ৪ জন, তামিলনাড়ুতে ৪ জন এবং তেলেঙ্গানায় ২ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

২. দিল্লিতে প্রথম JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্ট-এর সংক্রমণ বাড়ছে। ভারতজুড়ে কোভিড-১৯-এর ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের মধ্যে বুধবার দিল্লিতে কোভিড-১৯ সাব-ভ্যারিয়েন্ট জেএন.১-এর প্রথম সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সৌরভ ভরদ্বাজ জানিয়েছেন, জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য পাঠানো তিনটি নমুনার মধ্যে একটি কোভিড-১৯ সাব-ভ্যারিয়েন্ট JN.1 এবং অন্য দু’টি ওমিক্রনের। দিল্লির এইমস কোভিড-১৯ সন্দেহভাজন বা পজিটিভ কেসের জন্য গাইডলাইন জারি করেছে। বলা হয়েছে, ম্যানেজমেন্টের নির্দেশে কোভিড-১৯ পরীক্ষার গাইডলাইন অনুযায়ী, এসএআরআই (সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ইনফেকশন) আক্রান্ত রোগীদের ফুসফুসের উপসর্গের জন্য পরীক্ষা করা হবে, সি৬ ওয়ার্ডে ১২টি শয্যা গুরুতর অসুস্থ কোভিড-১৯ রোগীদের হাসপাতালে ভর্তির জন্য নির্ধারণ করা হবে। লেডি হার্ডিঞ্জ হাসপাতালে কোভিড রোগীদের জন্য ৪৮টি শয্যা সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। এছাড়া লেডি হার্ডিঞ্জ হাসপাতালের নতুন ভবনে ৬টি আইসিইউ শয্যা ও ৩০টি শয্যার একটি ওয়ার্ড কোভিড রোগীদের জন্য সংরক্ষিত রাখা হয়েছে।

৩. গুরুগ্রামের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হাসপাতালগুলিকে আইসোলেশন ওয়ার্ড স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন। বুধবার গুরুগ্রামে কোভিড -১৯ সাব-ভ্যারিয়েন্ট জেএন.১ এর আরও দুটি কেস সনাক্ত করা হয়েছে, যার ফলে মোট সক্রিয় কেসের সংখ্যা ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। গুরুগ্রামের জেলাশাসক নিশান্ত কুমার যাদব বুধবার হাসপাতালগুলিকে আইসোলেশন ওয়ার্ড, প্রতিটি আইসিইউতে একটি ডেডিকেটেড বিভাগ এবং কোভিড লক্ষণযুক্ত রোগীদের জন্য পৃথক ওপিডি স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন। প্রতিটি হাসপাতালের ওপিডির মধ্যে একটি স্বতন্ত্র এলাকা শুধুমাত্র কোভিড-১৯ এর লক্ষণযুক্ত ব্যক্তিদের জন্য মনোনীত করা হবে। এটি তাৎক্ষণিক স্ক্রিনিংয়ের সুবিধা দেবে। অন্যান্য রোগীদের মধ্যে সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাস করার সময় সন্দেহভাজন কেসগুলির জন্য পরীক্ষা করা হবে, নির্দেশে এটিও বলা হয়েছে।

৪. হিমাচল প্রদেশের স্বাস্থ্য বিভাগ কোভিডের মতো লক্ষণযুক্ত রোগীদের পরীক্ষা করতে এবং প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বনের জন্য রাজ্যে একটি নির্দেশ জারি করেছে। মঙ্গলবার উনার সিএমও চিকিৎসক সঞ্জীব কুমার জানিয়েছেন, সর্দি, জ্বর বা কাশির লক্ষণ যুক্ত ব্যক্তিদের কোভিড পরীক্ষা করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ইনফ্লুয়েঞ্জা, কাশি, সর্দি, গলা ব্যথা, নাক দিয়ে জল পড়া, মাথা ব্যথা এবং জ্বরের মতো শ্বাসকষ্টজনিত রোগের ক্ষেত্রে সমস্ত রোগীর অবিলম্বে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করা উচিত।

৫. কর্ণাটকে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার সাব-কমিটি কর্তৃক সিদ্ধান্ত নেওয়া পদক্ষেপগুলির মধ্যে রয়েছে মাস্ক পরা, লক্ষণযুক্ত শিশুদের স্কুলে না পাঠানো, সামাজিক দূরত্বের মতো কোভিড যথাযথ আচরণ মেনে চলা, সাত দিনের হোম আইসোলেশন এবং সংক্রামিত রোগীদের জন্য ছুটি নেওয়া। বয়স্ক এবং কোমর্বিডিটিযুক্ত ব্যক্তিদের জন্য  সতর্কতামূলক ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং এই উদ্দেশ্যে কেন্দ্রের কাছ থেকে কর্বেভ্যাক্স ভ্যাকসিনের ডোজ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

৬. গত সপ্তাহের শুরুতে কেন্দ্র রাজ্য সরকারগুলিকে পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য ব্যবস্থা করার আহ্বান জানিয়ে একটি অ্যাডভাইজরি জারি করেছিল।  আসন্ন উৎসবের মরসুমের কথা বিবেচনা করে, শ্বাসযন্ত্রের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার মাধ্যমে রোগের সংক্রমণ বৃদ্ধির ঝুঁকি হ্রাস করার জন্য প্রয়োজনীয় জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা এবং অন্যান্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। কেন্দ্র রাজ্যগুলিকে জেলাভিত্তিক শ্বাসযন্ত্রের রোগের ঘটনা পর্যবেক্ষণ করার ও নির্দেশ দিয়েছে।

৭. ভারতের কি উদ্বিগ্ন হওয়ার দরকার আছে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতে কোভিড-১৯-এর সক্রিয় সংক্রমণের সাম্প্রতিক বৃদ্ধি কেবল JN.1 ভ্যারিয়েন্ট নয়, BA.2.86-এর মতো অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের কারণেও হতে পারে। যেহেতু অনেক সক্রিয় কেস নথিভুক্ত হচ্ছে না, যেমন হালকা লক্ষণযুক্ত ব্যক্তিরা বলছেন, এটি বলা কঠিন যে কেবল মাত্র JN.1 সংক্রমণের কারণে সংক্রমণ বাড়ছে। আমাদের আরও একটু অপেক্ষা করতে হবে, বলেন গঙ্গাখেড়কর। কোভিডের নতুন সাব-ভ্যারিয়েন্ট JN.1-এর সংক্রমণ হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় এইমসের প্রাক্তন ডিরেক্টর ও সিনিয়র পালমোনোলজিস্ট চিকিৎসক রণদীপ গুলেরিয়া বলেন, যদিও নতুন ভ্যারিয়েন্টটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। যদিও এটি গুরুতর সংক্রমণ এবং হাসপাতালে ভর্তির কারণ হচ্ছে না, তবে তিনি বলেছিলেন যে ভাইরাসটি পরিবর্তিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের একটি নতুন ভ্যাকসিন প্রয়োজন যা ভাইরাসের একটি বিস্তৃত প্রকারকে কভার করে। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে যে গত চার সপ্তাহে নতুন কোভিড কেসের সংখ্যা ৫২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ৮ ০০,০০০-এরও বেশি নতুন কেসের রিপোর্ট হয়েছে।

৮. JN.1-এর লক্ষণ। দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালের চেস্ট মেডিসিনের সিনিয়র কনসালটেন্ট চিকিৎসক উজ্জ্বল প্রকাশ ব্যাখ্যা করেছেন যে JN.1 বিশ্বব্যাপী দেখা অন্যান্য ভ্যারিয়েন্ট এবং সাব-ভ্যারিয়েন্টের অনুরূপ। সাধারণ লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে জ্বর, নাক দিয়ে জল পড়া, গলা ব্যথা, মাথা ব্যথা। কেউ কেউ হালকা গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল লক্ষণগুলির মুখোমুখিও হতে পারেন। তাঁর মতে, কিছু রোগীর শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যার লক্ষণ দেখা দিতে পারে যা সাধারণত চার থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে উন্নত হয়। মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, কিছু লক্ষণগুলির মধ্যে চরম ক্লান্তি, ক্ষুধা হ্রাস, বমি বমি ভাব, স্বাদ বা গন্ধ হ্রাস অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে।

৯. এই JN.1 থেকে সতর্কতার বিষয়ে কী বলছেন চিকিৎসকরা? ভাইরাল সংক্রমণের লক্ষণযুক্ত ব্যক্তিদের অবিলম্বে নিজেকে নাক-মুখ ঢেকে রাখা উচিত, সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি হ্রাস করার জন্য মাস্ক পরা উচিত এবং তাড়াতাড়ি কোভিড পরীক্ষা করা উচিত।

১০. চিকিৎসক শেখর সি মান্ডের মতে, শুধুমাত্র কোভিড-১৯ নয়, ভারতে অন্যান্য রোগের উপরও নজর রাখার গুরুত্বের উপর জোর দিয়েছেন। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে তিনি বলেন, ‘নজরদারি সব সময় সাহায্য করে। আমি মনে করি নজরদারি শুধু সার্স-কোভ-২ এর জন্য নয়, আমি মনে করি আমাদের সব ধরনের বিভিন্ন সংক্রমণের জন্য নজরদারি করা উচিত এবং নজরদারির অর্থ মূলত অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল প্রতিরোধের মতো কী ধরণের রোগ ছড়িয়ে পড়ছে তা দেখা। সুতরাং নজরদারি যে কোনও ক্ষেত্রে খুব ভাল ধারণা।’

(পিটিআই, এএনআই থেকে প্রাপ্ত ইনপুট সহ)

 

টুকিটাকি খবর

Latest News

কোহলির নজির 'চুরি করেছিলেন' বাবর, রানের এভারেস্টে উঠে বিশ্বরেকর্ড কাড়লেন রোহিত আজও বৃষ্টি, বুধ থেকে আরও বাড়বে, ৫০ কিমিতে হবে ঝড়, কোথায় বেশি স্বস্তি মিলবে? ধনু-মকর-কুম্ভ-মীনের মঙ্গলবার কেমন কাটবে? জানুন রাশিফল 11 ওভার শেষে Afghanistan-র স্কোর 59/1 সিংহ-কন্যা-তুলা-বৃশ্চিকের কেমন কাটবে মঙ্গলবার? জানুন রাশিফল মেষ-বৃষ-মিথুন-কর্কট রাশির কেমন কাটবে মঙ্গলবার? জানুন রাশিফল ‘কাম অন বাংলাদেশ’, সেমিতে ওঠার লড়াইয়ে ‘টাইগার’-দের পাত্তাই দিল না অস্ট্রেলিয়া? গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিতে ভারত, অজিরা চাতকের মতো তাকিয়ে BAN v AFG ম্যাচের দিকে আফগান জিতলেই ছিটকে যাবে অস্ট্রেলিয়া! কীভাবে বাংলাদেশ সেমিতে যেতে পারবে? রইল অঙ্ক ছয় হাঁকিয়ে নিজের ১৪ বছর আগের রেকর্ড ছুঁলেন রোহিত,T20 WC-এ গড়লেন বাউন্ডারির নজির

T20 WC 2024

আফগান জিতলেই ছিটকে যাবে অস্ট্রেলিয়া! কীভাবে বাংলাদেশ সেমিতে যেতে পারবে? রইল অঙ্ক ‘হোয়্যাটটটট আ ক্যাচ’- দুর্বল হাত দিয়ে ছোঁ মেরে ক্যাচ অক্ষরের, নিশ্চিত ছক্কা ছিল প্রবল বৃষ্টি সেন্ট লুসিয়ায়, না খেলেই কি সেমিতে যাবে ভারত? অজিদের কী হবে? -ভিডিয়ো ভারতের তিন জন স্পিনার না খেলিয়ে,সিরাজকে খেলানোর পরামর্শ সেন্ট লুসিয়ার কিউরেটরদের Points Table: শেষ চারে উঠল ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, বিদায় দুই উদ্যোক্তার কাজে এল না রস্টন চেসের অলরাউন্ড লড়াই, ৩ উইকেটে জিতে সেমিতে দক্ষিণ আফ্রিকা অজি বোর্ডের সমালোচনা খোয়াজার, ডাউন আন্ডারে না খেলতে পারা নিয়ে কী বললেন রশিদ বৃষ্টিতে ম্যাচ ভেস্তে গেলে ভারত সেমিতে উঠবে,কপাল পুড়বে অজিদের,সে সম্ভাবনা থাকছে জর্ডনের হ্যাটট্রিক, বাটলার ঝড়ে USA-কে উড়িয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড IND vs AUS: ভারতকে হারানোর চেয়ে বড় বিষয় কিছু হতে পারে না…তড়পাচ্ছেন অজি অধিনায়ক

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.