বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Buttermilk Side-Effects: সকলের যে লস্যি খেতে নেই, তা জানেন? কারা কারা লস্যি খেলে বিপদে পড়তে পারেন
কারা একদম লস্যি খাবেন না?

Buttermilk Side-Effects: সকলের যে লস্যি খেতে নেই, তা জানেন? কারা কারা লস্যি খেলে বিপদে পড়তে পারেন

  • লস্যি পান করলেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে। আপনি কি জানেন যে লস্যি পান করার সঠিক সময়ও রয়েছে? এছাড়া কারও কারও ক্ষেত্রে এটি পান করলে উপকারের বদলে ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়।

গ্রীষ্ম এবং বর্ষায় শরীর ঠান্ডা রাখতে অনেকেই লস্যি খান। লস্যি যেমন সুস্বাদু, তেমনই স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। এমনটাই ধারণা বেশির ভাগেরই। কী কী উপকার হয় লস্যি খেলে?

এটি ত্বকের এবং চুলের জন্য ভালো। অ্যাসিডিটি, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে, ওজন কমাতে এবং হাড় মজবুত করতে সাহায্য করে। এতে রয়েছে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট, অনেক ধরনের ভিটামিন, প্রোটিন, পটাসিয়াম, ফসফরাস, ভালো ব্যাকটিরিয়া, ল্যাকটিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম ইত্যাদি। এগুলি সবই স্বাস্থ্যের জন্য কোনও না কোনওভাবে ভালো। (আরও পড়ুন: গরমে ঘোল খেতে ভালোই লাগে, কিন্তু এতে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে না তো? কারা এটি খাবেন না)

তা সত্ত্বেও, লস্যি সকলের ক্ষেত্রে ভালো নাও হতে পারে? কারও কারও ক্ষেত্রে এই পানীয় বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাছাড়া এটি পান করার সঠিক সময় রয়েছে। জেনে নিন, কাদের লস্যি পান করা উচিত নয়? কোন সময়েই বা এটি পান করা উচিত? (আরও পড়ুন: দুধ খেলে বমি পায়? তাহলে এই পানীয়টি খান, গুণ প্রায় একই রকম, কোলেস্টেরলও কমবে)

কারা লস্যি খাবেন না?

  • লস্যি তৈরিতে চিনি ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি ডায়াবিটিসে আক্রান্ত হন, তবে অতিরিক্ত লস্যি খেলে আপনার সমস্যা বাড়তে পারে।
  • লস্যিতে সোডিয়ামের পরিমাণ অনেক বেশি। যা কিডনি রোগে আক্রান্তদের জন্য ভালো নয়। আপনি কিডনির কোনও সমস্যায় আক্রান্ত হলে এটি পান করা এড়িয়ে চলুন।
  • রাতে লস্যি খেলে তা ঠিকমতো হজম হয় না। ওজন বাড়তে পারে এতে। তাছাড়া লস্যিতে রয়েছে ভিটামিন, মিনারেল, প্রোটিন ও ফ্যাট। তাই আপনি যদি এটি রাতে পান করেন, তবে আপনার ওজন বাড়তে পারে।
  • যাঁদের একজিমার সমস্যা আছে, তাঁদেরও অতিরিক্ত মাখন খাওয়া উচিত নয়। এতে ত্বকে জ্বালাপোড়া, চুলকানির সমস্যা আরও তীব্র হতে পারে।
  • আপনি যদি রাতে লস্যি খান, তবে আপনার শরীরে আরও শ্লেষ্মা তৈরি হতে শুরু করে।যার কারণে ঠাণ্ডা, সর্দি ও গলা ব্যথার মতো সমস্যা শুরু হয়। ঠাণ্ডা ও ফ্লুর সমস্যা এড়াতে রাতে লস্যি পান এড়িয়ে চলুন।
  • রাতে লস্যি পান করলে, তা পাচনতন্ত্রকে প্রভাবিত করে। যার কারণে আপনার বমি হওয়ার সমস্যাও হতে পারে। তাই এই সমস্যা এড়াতে চাইলে রাতে লস্যি পান এড়িয়ে চলুন।
  • রাতে লস্যি খেলে হজমপ্রক্রিয়া অনেকটা ধীর হয়ে যায়। যার কারণে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা হতে পারে।
  • হাঁটু এবং জয়েন্টের ব্যথার যাঁরা ভুগছেন, তাঁরা রাতে লস্যি খাবেন না। রাতে লস্যি পান করলে আপনার জয়েন্টে ব্যথার সমস্যা বাড়তে পারে। তাই বাতের সমস্যা বা ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে গেলে, রাতে লস্যি পান করা থেকে বিরত থাকুন।

কোন সময়ে লস্যি পান করা উচিত?

লস্যি পানের উপযুক্ত সময় বিকেল। বিকেলে লস্যি পান করা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।পুষ্টিবিদরা বলেন, ভারী খাবারের পর সব সময়ে লস্যি পান করা উচিত। এছাড়া জলখাবারের পরেও লস্যি খেতে পারেন।

বন্ধ করুন