বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Parenting Tips: সদ্যই মা হয়েছেন? ভুলেও এই ফল খাবেন না, কেন জানেন?
কোন ফল স্তন্যদায়ী মায়েরা খাবেন না

Parenting Tips: সদ্যই মা হয়েছেন? ভুলেও এই ফল খাবেন না, কেন জানেন?

  • Parenting Tips: সন্তান জন্মানোর পর মায়েদের অনেক কিছু ভেবে, বুঝে চলতে হয় তাঁর সন্তানের জন্য বিশেষ করে যাঁদের সন্তান এখনও স্তন্যপান করে। কেন জানেন?

একটি সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়া মানেই একসঙ্গে অনেকগুলো নতুন সম্পর্কের জন্ম হওয়া। একটা পরিবারের জন্য ভীষণ আনন্দের খবর। কিন্তু একি সঙ্গে মাকে সন্তানের জন্য নানান দিক বিবেচনা করে, ভেবে কাজ করতে হয়, খেতে হয়। বিশেষ করে যাঁদের সন্তান এখনও স্তন্যপান করে। একটি শিশুর জন্য মাতৃদুগ্ধ ভীষণই জরুরি এবং পুষ্টিকর। এটার মাধ্যমেই শিশুরা সব থেকে বেশি পুষ্টি পায়, সঙ্গে শক্তিও। তাই জন্মের পর অন্তত ছয় মাস অবধি শিশুদের স্তন্যপান করানো উচিত।

কিন্তু স্তন্যদায়ী মাকে মেনে চলতে হয় অনেক কিছুই। বিশেষ করে এই সময় তাঁদের অনেক ফল খেতে নেই। এই ফলগুলো খেলে তাঁদের বিপদ হতে পারে। আসুন এই প্রতিবেদন থেকে দেখে নেওয়া যাক স্তন্যদায়ী মায়ের জন্য কোন ফল উপকারী আর কোনটা নয়। কারণ মা ভালো থাকলেই শিশুও ভালো থাকবে, এই কথা সকলেরই জানা। ফল আমাদের পুষ্টি জুগিয়ে থাকে, কিন্তু এমন কিছু ফল রয়েছে যা ক্ষতি করতে পারে। দেখুন কোন ফল খাবেন না এই সময়ে।

কোন ফল স্তন্যদায়ী মায়েরা খাবেন না:

১. টক জাতীয় ফল: টক ফল খেলে বুকের দুধে একটি তীব্র স্বাদ চলে আসে, সেই কারণে শিশুরা অনেক সময় স্তন্যপান করতে চায় না। এছাড়াও যেহেতু এতে অম্লীয় যৌগ থাকে সেহেতু এটা শিশুদের গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল ট্র্যাক্টে জ্বালা হতে পারে। তাই স্তন্য দায়ী মায়েদের লেবু, কিউই, স্ট্রবেরি না খাওয়াই উচিত।

২. চেরি: চেরি, বেরি, এই জাতীয় ফল এই সময় খাওয়া উচিত নয়। এটা শিশু এবং মা দুজনের জন্যই খারাপ। মা এই ধরনের ফল খেলে শিশুদের গ্যাসের সমস্যা হয়। কারণ শিশুদের পাচনতন্ত্র এই সময় ভীষণই দুর্বল হয়।

কোন ধরনের ফল স্তন্যদায়ী মায়েদের খাওয়া উচিত?

১. সবুজ পেঁপে: সবুজ পেঁপে স্তন্যদুধ উৎপাদনে সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও এটি শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে থাকে। সবুজ পেঁপে প্রাকৃতিক রেচক হিসেবে কাজ করে থাকে।

২. কলা: কলা হজমে সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও এটি প্রাকৃতিক রেচক হিসেবে সাহায্য করে। কলাতে রয়েছে ফাইবার যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে। আর যেহেতু কলায় অনেক পরিমাণে পটাশিয়াম আছে সেহেতু এটি স্তন্যদায়ী মায়েদের জন্য ভীষণই উপকারী।

৩. অ্যাভোকাডো: মা এবং শিশু দুজনের স্বাস্থ্যের জন্যই অ্যাভোকাডো ভীষণ জরুরি। এতেও আছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম। এটা খেলে শিশুর দৃষ্টিশক্তি বাড়ে, চুল ঘন হয়। একই সঙ্গে হার্টের স্বাস্থ্যও ভালো রাখতে সাহায্য করে অ্যাভোকাডো।

৪. সবেদা: সবেদায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি। এটাও স্তন্যদায়ী মায়েদের জন্য ভীষণ উপকারী। স্তন্যদান করার জন্য তাঁর যতটা ক্যালোরি খরচ হয়, সবেদা সেটা পূরণ করতে সাহায্য করে।

৫. ডুমুর: এই ফলে রয়েছে ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন রয়েছে। এছাড়াও এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, এবং ভিটামিন কে। ফলে এই ফলটি মা এবং শিশু দুজনেরই স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণই উপকারী।

বন্ধ করুন