বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Skin Care Tips: মুখে বা ত্বকের রোগে বিরক্ত! ব্ল্যাক টি ব্যবহার করে উপশম পাবেন কীভাবে? জেনে নিন
ব্ল্যাক টি'তেই ত্বকের রোগ থেকে মুক্তি মিলতে পারে। (ছবিটি প্রতীকী. সৌজন্যে Pixabay)
ব্ল্যাক টি'তেই ত্বকের রোগ থেকে মুক্তি মিলতে পারে। (ছবিটি প্রতীকী. সৌজন্যে Pixabay)

Skin Care Tips: মুখে বা ত্বকের রোগে বিরক্ত! ব্ল্যাক টি ব্যবহার করে উপশম পাবেন কীভাবে? জেনে নিন

  • গবেষকদের দাবি, তাঁরা একটি পরীক্ষা চালিয়েছিলেন। তাতেই মিলেছে সাফল্য।

ত্বকের মারাত্মক রোগ মানুষকে হামলার মুখে আরও দুর্বল করে তোলে৷ রোগ মোকাবিলার ওষুধের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়াও কম ক্ষতি করে না৷ অথচ অতি সাধারণ এক পানীয় ত্বকের রোগের ক্ষেত্রে কার্যকর হতে পারে৷

নিউরোডার্মাটাইটিসের ক্ষেত্রে মূল সমস্যা হল, ত্বকের প্রতিরোধ ক্ষমতায় দুর্বলতা৷ ত্বকের বাইরের স্তরে যথেষ্ট হর্ন ফ্যাট থাকে না৷ ফলে বাইরে থেকে যে কোনও বস্তু অনেক সহজে ত্বকে প্রবেশ করে প্রদাহ ঘটাতে পারে৷

আরও পড়ুন: Cashew or Walnuts: কাজুবাদাম নাকি আখরোট? কোনটি বেশি উপকারী? আপনার জন্য কোনটি ভালো

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কর্টিজন প্রয়োগ করে সেই প্রদাহের চিকিৎসা হয়৷ সেই পদ্ধতি কার্যকর হলেও দীর্ঘমেয়াদী ভিত্তিতে ত্বক পাতলা এবং আরও দুর্বল হয়ে ওঠে৷ বিশেষ করে মুখের ত্বক বিশেষ সংবেদনশীল হওয়ায় সেটা বড় এক সমস্যা৷

কালো চা কি কর্টিসনের বিকল্প হতে পারে? ত্বক বিশেষজ্ঞ ইয়াকভ শিমানোভিচ এ বিষয়ে আরও স্পষ্ট জানতে চেয়েছিলেন৷

এক ছোটো আকারের পরীক্ষার আওতায় তিনি ২২ জন রোগীর চিকিৎসা করেছিলেন, যাঁদের মুখে নিউরোডার্মাটাইটিসের কঠিন প্রভাব ছিল৷ তাঁদের মুখে ব্ল্যাক টি'র প্রলেপ লাগানো হল৷ কাটি ডিটমার ছিলেন তাঁদেরই একজন৷ তিনি বলেন, ‘সত্যি, মনে হয়েছিল, আমার মুখের উপর কখন এত খারাপ অবস্থা কখনও হয়নি৷ এখনকার তুলনায় অনেক খারাপ ছিল৷'

ব্ল্যাক টি দিয়ে চিকিৎসার চরিত্র ছিল এ রকম৷ ১০ মিনিট ধরে একটি টি ব্যাগ গরম জলে ভেজানো হয়েছিল৷ তারপর সেই জল ফেলে দিয়ে নতুন জলে সেই টি ব্যাগ আরও ১০ মিনিট ভিজিয়ে সেই জল ব্যবহার করা হয়েছে৷ 

আরও পড়ুন: Blood Test Before Marriage: বিয়ের আগে দু’জনকে এই পরীক্ষাটি করাতেই হবে, তাহলেই নিরাপদ হতে পারে ভবিষ্যৎ

ড. শিমানোভিচ বলেন, ‘চায়ে ভেজানো দ্বিতীয় ইনফিউশন কিছুটা দুর্বল, কারণ তাতে প্রথম কাপের তুলনায় আরও কম ট্যানিন ও অন্যান্য উপকরণ রয়েছে৷ ফলে সেটি অনেক হালকা ও রোগীদের জন্য অনেক বেশি সহনীয়৷ কিন্তু যথেষ্ট উপকারী৷'

দিনে পাঁচবার চায়ে ভেজানো কাপড় ২০ মিনিট ধরে রোগীর মুখের উপর রাখা হয়৷ প্রত্যেকবার কাপড় সরানোর পর ত্বকে ক্রিম লাগানো হয়৷ সেই ক্রিমে ফ্যাট ছাড়া অন্য কোনও অ্যাক্টিভ এজেন্ট, সুগন্ধ বা প্রিজারভেটিভ থাকে না৷

পরীক্ষার ফলাফল খুবই ইতিবাচক৷ মাত্র তিনদিন পরেই অংশগ্রহণকারীদের উপসর্গ গড়ে ৭০ শতাংশ কমে গেল৷ এত দ্রুত এমন শক্তিশালী প্রভাব দেখে ড. শিমানোভিচ ও তাঁর টিম অবাক হয়েছিলেন৷ তাঁর অনুমান, চায়ের থেরাপির আওতায় তিনটি প্রভাব কাজ করে এবং সেগুলি একে অপরকেও সহায়তা করে৷

প্রথমত, আর্দ্র প্রলেপের নিজস্ব ক্ষমতা৷ নিউরোডার্মাটাইটিসের ক্ষেত্রে মূলত ত্বক অতি শুষ্ক হলেও বাইরে থেকে বড় আঘাত পেলে প্রদাহের জায়গাটি আর্দ্র হয়৷ চায়ের পানি প্রদাহের কোষগুলি শুকাতে সাহায্য করে৷ একইসঙ্গে ত্বক শীতল করে স্বস্তিও দেয়৷

দ্বিতীয়ত, চায়ের মধ্যে ট্যানিনের অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি ক্ষমতা রয়েছে, যা চুলকানি কমায় এবং ত্বকের আর্দ্রতা ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ করে৷

তৃতীয়ত ক্রিমের ফ্যাটের প্রলেপ ত্বকের প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি করে৷ কাটি ডিটমারওব এমন প্রভাব দেখে বিস্মিত হয়েছিলেন৷

২৭ বছর বয়সি এই নারী এখন বাড়িতে সবসময় ব্ল্যাক টি রাখেন৷ সুপারমার্কেটের সস্তার চা-ই যথেষ্ট৷ তবে তার মধ্যে কোনও বাড়তি ফ্লেভার থাকলে চলবে না৷ ত্বকে খোঁচা লাগলেই তিনি নিয়মিত চায়ের প্রলেপ লাগান৷

(বিশেষ দ্রষ্টব্য : প্রতিবেদনটি ডয়চে ভেলে থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রতিবেদনই তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার কোনও প্রতিনিধি এই প্রতিবেদন লেখেননি।

বন্ধ করুন