বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > How to control weight: উৎসবের মরশুম, দেদার খাওয়াদাওয়া করেও এই সময়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে কী করবেন
হইহুল্লোড়-খাওয়াদাওয়া করেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে? (ফাইল ছবি)
হইহুল্লোড়-খাওয়াদাওয়া করেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে? (ফাইল ছবি)

How to control weight: উৎসবের মরশুম, দেদার খাওয়াদাওয়া করেও এই সময়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে কী করবেন

  • বছর শেষের পার্টিতে প্রচুর খাওয়াদাওয়া হয়ে যাচ্ছে? তবুও রোগা থাকতে পারেন কয়েকটি নিয়ম মেনে চললেই।

আর ক’দিন পরেই বড়দিন আর ইংরেজি নতুন বছরের শুরু। বছরের এই সময়ে খাওয়াদাওয়া করবেন না তো, কখন করবেন? অনেকেই এই সময়ে একটু খাওয়াদাওয়া করে, আনন্দ করে কাটান। তবে তার প্রভাব পড়ে শরীরেও। অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যালোরির কারণে ওজন বাড়ে। ক্লান্তিও বেড়ে যায়। অনেকেই নতুন বছরের গোড়ায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে গিয়ে দেখেন, রক্তচাপ বা রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে গিয়েছে। 

কিন্তু কয়েকটি সাধারণ নিয়ম মেনে চললে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তেমনই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। কী করে বছর শেষের আনন্দ পুরোপুরি উপভোগ করেও শরীর সুস্থ রাখবেন? এ জন্য বিশেষজ্ঞরা পাঁচটি রাস্তা বলে দিচ্ছেন। জেনে নিন সেগুলি কী কী।

  • নিয়ম মেনে খান: উৎসবের দিনগুলো দেদার খেলাম, তার পরে খাওয়া বন্ধ করে দিলাম। অনেকেই এমন নিয়ম মেনে চলেন। ভাবেন, এতেই ওজন কমবে। আসলে বিষয়টি মোটেই তা নয়। এতে ওজন তো কমেই না, উল্টে শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ে। বরং উৎসবের মরশুম কেটে গেলে এমন খাবার বেশি করে খান, যাতে প্রচুর পুষ্টিগুণ এবং ভিটামিন রয়েছে। প্রচুর শাকসব্জি খান। মশলপাতি বা ভাজাভুজি খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দিন।
  • রোজ শরীরচর্চা: রোজ প্রচুর খাওয়াদাওয়া হয়ে যাচ্ছে? তার পরেও সমস্যা নাও হতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনাকে রোজ নিয়ম করে শরীরচর্চা করতে হবে। সকালে হাল্কা দৌড়, তার পরে অল্প ফ্রিহ্যান্ড এক্সারসাইজ শরীর অনেকটাই চাঙ্গা করে দিতে পারে। রক্ত চলাচলের মাত্রা বাড়বে। তাতে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে।  
  • কত ক্যালোরি যাচ্ছে শরীরে: রোজ কত ক্যালোরি খাবার শরীরে যাচ্ছে, সেদিকে ভালো করে নজর দিন। দরকার পড়লে চিকিৎসক বা বিশেষজ্ঞের থেকে জেনে নিন, কোন খাবারে কত ক্যালোরি রয়েছে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত ক্যালোরি গেলেই রাশ টানুন। তাহলে শরীর খারাপের আশঙ্কা কমবে।
  • পর্যাপ্ত জল খান: উৎসবের মরশুম পেরিয়ে গেলেই কি দেখেন, ত্বক শুষ্ক হয়ে গিয়েছে? কিংবা চুল আগের মতো নরম নেই? এর বড় কারণ শরীর শুকিয়ে যাওয়া। আমাদের শরীরের ৭০ শতাংশই জল। ত্বকের কোমলতা থেকে চুলের ঔজ্জ্বল্য— এ সবই নির্ভর করে শরীরে কতটা জল রয়েছে তার উপর। তাছাড়া শরীরের সার্বিক সুস্থতা তো আছেই। এই মরশুমে ভালো করে জল খান। তাজা ফলের রসও খুব কাজে লাগতে পারে শরীর সুস্থ রাখতে। শরীর শুকিয়ে না গেলে ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকবে।
  • ভালো ঘুম: রোজ প্রচুর আনন্দ, হইহুল্লোড় করছেন? তাহলেও যেন ঘুমের অভাব না হয়। পর্যাপ্ত ঘুম হলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। শরীরও সুস্থ থাকবে।

বন্ধ করুন