পাঁচ জেলায় সোয়াইন ফ্লু-তে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে ১,৩০০ শুয়োর।
পাঁচ জেলায় সোয়াইন ফ্লু-তে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে ১,৩০০ শুয়োর।

অসমে সোয়াইন ফ্লু হানায় ৫ জেলায় মৃত ১,৩০০ শুয়োর, বিপুল ক্ষতি চাষিদের

  • সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে আক্রান্ত জেলাগুলিতে পশুচিকিৎসক দল পাঠাল রাজ্য প্রশাসন।

লকডাউনের মাঝে অসমের পাঁচ জেলায় সোয়াইন ফ্লু-তে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে ১,৩০০ শুয়োর। বিষয়টি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে আক্রান্ত জেলাগুলিতে পশুচিকিৎসক দল পাঠাল রাজ্য প্রশাসন।

জানা গিয়েচে, যোরহাট, শিবসাগর, লখিমপুর, ধেমাজি ও নগাঁও জেলায় লকডাউনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত শুয়োর পালকদের খোঁয়াড়ে হানা দিয়েছে এই রোগ। 

অসমের কৃষি ও পশু পালন দফতরের মন্ত্রী অতুল বোরা জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের রোগের কারণ ও বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে সম্ভাব্য প্রতিরোধক ব্যবস্থা নির্ধারণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অসম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান বিজ্ঞানী ধীরেশ্বর কলিতা মঙ্গলবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘ক্লাসিক্যাল সোয়াইন ফ্লু একটি সংক্রামক রোগ যা বছরের এই সময়ে শুয়োরদের আক্রমণ করে। তবে এই বছর রোগের হানা আরও তীব্র হওয়ায় প্রচুর সংখ্যক শুয়োরের মৃত্যু হয়েছে, যার জেরে বিপুল ক্ষতি হয়েছে পশুপালকদের।’

পাশাপাশি, উত্তর পূর্ব প্রগ্রেসিভ শুয়োর চাষি অ্যাসোসিয়েশনের (NEPPFA) সভাপতি মনোজ বসুমাতারি জানিয়েছেন, সোয়াইন ফ্লু শুধুমাত্র শুয়োরকেই সংক্রামিত করে। এর জেরে মানুষের শরীরে সংক্রমণ ঘটে না। সঠিক চিকা ব্যবহারে সংক্রমণ থেকে রক্ষা মেলে।

২০১২ থেকে ২০১৮ সালের গবাদি পশু সমীক্ষা অনুযায়ী, দেশের সবচেয়ে বেশি সংখ্যক শুয়োর পালন হয় অসমে। এই অঞ্চলে শুয়োরের মাংসের বাজারে প্রায় এক কোটি ডলার মূল্যের ব্যবসা চলে।

বন্ধ করুন