বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলায় ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস, জোড়া নিম্নচাপ রেখার ঠেলায় বর্ষা বিদায়ে বাধা
জোড়া নিম্নচাপ রেখার জেরে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের একাধিক রাজ্যে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস করা হয়েছে।
জোড়া নিম্নচাপ রেখার জেরে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের একাধিক রাজ্যে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস করা হয়েছে।

বাংলায় ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস, জোড়া নিম্নচাপ রেখার ঠেলায় বর্ষা বিদায়ে বাধা

  • পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের একাধিক রাজ্যে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস করা হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে উত্তর আন্দামান সাগর ও বঙ্গোপসাগরে পর পর দুটি নিম্নচাপ রেখা সৃষ্টি হতে চলেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। তার জেরে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের একাধিক রাজ্যে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস করা হয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ভারত, পশ্চিম হিমালয় ও উত্তর-পূর্ব ভারত ছাড়া দেশের অধিকাংশ অঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হবে। এই দুই নিম্নচাপ রেখার কারণে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বিদায়ের পথে বাধা সৃষ্টি হবে বলে হাওয়া অফিস জানিয়েছে। 

ভারতীয় আবহওয়া দফতরের শীর্ষস্থানীয় আবহাওয়া বিজ্ঞানী এ কে দাস জানিয়েছেন, ‘দুটি উপর্যুপরি নিম্নচাপ রেখা সৃষ্টি হওয়ার ফলে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বাতাস বিদায় নিতে পারবে না। ২২ অক্টোবরের পরে তার প্রস্থান ঘটতে পারে।’

উল্লেখ্য, সাধারণত প্রতি বছর সেপ্টেম্বরের ১৭ তারিখ থেকে অক্টোবরের ১৫ তারিখের মধ্যে ভারতীয় ভূখণ্ড থেকে বর্ষা বিদায় পর্ব সম্পূর্ণ হয়। 

পূর্বাভাস অনুসারে, শুক্রবার প্রথম নিম্নচাপ রেখাটি তৈরি হয়েছে উত্তর আন্দামান সাগর ও সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে। এর পর তা উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে অন্ধ্র প্রদেশের উত্তর ভাগ ও দক্ষিণ ওড়িশা উপকূলে পৌঁছবে ১১ অক্টোবর দুপুর নাগাদ। এর ফলে ওই সমস্ত অঞ্চলে গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টি হবে।

দ্বিতীয় নিম্নচাপ রেখাটি ১৪ অক্টোবর নাগাদ তৈরি হওয়ার পরে দুই দিনে ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ের রূপ ধারণ করবে। অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়ের মরশুমের প্রস্তুতি নিতে বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসে আবহাওয়া দফতর।

প্রসঙ্গত, গত মে মাসে ঘূর্ণিঝড় আমফান এবং জুন মাসে নিসর্গের দাপটে ভারতের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বিপুল ক্ষয়ক্ষতি ঘটে। 

শীতের আগমন পর্বের আবির্ভাবের শুরুতে উত্তর-পশ্চিম ভারতে চলতি সপ্তাবে রাতের তাপমাত্রা কমবে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

বন্ধ করুন