বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কিটক্যাট-এর মোড়কে 'ভুল', শুধরে দিতে নেসলেকে চিঠি মণিপুর সরকারের
কিটক্যাট (প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে ব্লুমবার্গ) (Bloomberg)
কিটক্যাট (প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে ব্লুমবার্গ) (Bloomberg)

কিটক্যাট-এর মোড়কে 'ভুল', শুধরে দিতে নেসলেকে চিঠি মণিপুর সরকারের

  • কিটক্যাটের মোড়কে উল্লেখ করা, কেইবুল লামাজাও জাতীয় উদ্যানটি মেঘালয়ে অবস্থিত। তবে আসলে এটি মণিপুরে অবস্থিত।

জনপ্রিয় চকোলেট কিটক্যাট-এর মোড়কে তথ্যগত ত্রুটি। আর তা ঠিক করে দিতেই নেসলেকে চিঠিপাঠাল মণিপুর সরকারের বন দপ্তর। কিটক্যাটের মোড়কে উল্লেখ করা, কেইবুল লামাজাও জাতীয় উদ্যানটি মেঘালয়ে অবস্থিত। তবে মণিপুরের বন দফতরের দাবি, এই জাতীয় উদ্যান তাদের রাজ্যে অবস্থিত। আর এই সংক্রান্ত ভুল শুধরে দিতেই নেসলেকে চিঠি লেখে মণিপুর সরকার।

এই বিষয়ে মণিপুর বন বিভাগের প্রধান বন সংরক্ষক (বন্যজীবন) ও চিফ বন্যজীবন ওয়ার্ডেন ডঃ একে যোশী বলেন, আমরা নেসলে কিটকাট চকোলেটের একটি মোড়কের কাগজ পেয়েছি যার মধ্যে 'কেইবুল লামাজাও জাতীয় উদ্যান' এর নাম উল্লেখ রয়েছে। তবে সেখানে উল্লেখ করা রয়েছে যে এই জাতীয় উদ্যানটি মেঘালয়ে অবস্থিতষ। এটি পুরোপুরি ভুল।

মণিপুরের বিষ্ণুপুর জেলার বিশ্বখ্যাত লোকক লেকের দক্ষিণ পশ্চিম অংশে অবস্থিত কেইবুল লামাজাও জাতীয় উদ্যান। কেইবুল লামাজাও বিশ্বের একমাত্র ভাসমান জাতীয় উদ্যান। এদিকে কিটক্যাটের মোড়কে এই জাতীয় উদ্যানের সঙ্গে রেড প্যান্ডার ছবি দেওয়া। কিন্তু এই উদ্যানে রেড প্যান্ডা নেই। যা নিয়ে মণিপুর বন বিভাগ নেসলেকে তোপ দেগে বলেছে, এটি আপনাদের বিপণন দলের পক্ষ থেকে একটি দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ। 

বন্ধ করুন