বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘আমি জানতাম ও জিতবে’, শপথগ্রহণে যাওয়ার পরিকল্পনা কমলা হ্যারিসের মামার
‘আমি জানতাম ও জিতবে’, শপথগ্রহণে যাওয়ার পরিকল্পনা কমলা হ্যারিসের মামার (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
‘আমি জানতাম ও জিতবে’, শপথগ্রহণে যাওয়ার পরিকল্পনা কমলা হ্যারিসের মামার (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

‘আমি জানতাম ও জিতবে’, শপথগ্রহণে যাওয়ার পরিকল্পনা কমলা হ্যারিসের মামার

  • ভাগ্নীর জয়ে উচ্ছ্বসিত স্বনামধন্য প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ।

চূড়ান্ত টানাপোড়েন, নাটকীয়তার শেষে এসেছে জয়। ব্যবধানও খুব একটা বেশি নয়। তা সত্ত্বেও কমলা হ্যারিয়ের জয়ের বিষয়ে আগেভাগেই নিশ্চিত ছিলেন বলে জানালেন নয়া মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্টের মামা গোপালন বালাচন্দ্রন।

ভাগ্নীর জয়ের খবর পাওয়ার পর নয়াদিল্লির বাড়ি থেকে সংবাদসংস্থা এএনআইকে জি বালাচন্দ্রন বলেন, ‘আমি পরিসংখ্যান নিয়ে ভালোভাবে পড়াশোনা করেছিলাম। আমি জানতাম ও জিতবে। আমি একদমই চিন্তায় ছিলাম না। আমি শুধু চাইছিলাম যে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করে দেওয়া হোক, যাতে কোনওরকম দুশ্চিন্তা ছাড়া আমি গিয়ে ঘুমোতে পারি।’ 

আরও পড়ুন : মার্কিন উপ রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়ে একাধিক রেকর্ড গড়লেন কমলা হ্যারিস

দেশের অন্যতম স্বনামধন্য প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ জানান, ভারতে পরিবারের সঙ্গে এখনও কমলার নিবিড় যোগাযোগ আছে। আগামী ২০ জানুয়ারি কমলার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানেও উপস্থিত থাকার পরিকল্পনা করেছেন বলে জানান। তিনি বলেন, ‘গতকালের আগের দিন ওর সঙ্গে কথা বলেছি। সেটা একেবারে পারিবারিক কথোপকথন ছিল। ফোনে কোনও রাজনৈতিক প্রশ্ন করিনি। ২০ জানুয়ারি ওর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার পরিকল্পনা করছি।’

এত বড় দায়িত্ব পেয়েছেন কমলা, তাঁকে কি পরামর্শ দেবেন? বালাচন্দ্রন জানান, আর পাঁচজন অভিভাবক যে পরামর্শ দেন, তাই দেবেন। মার্কিন ইতিহাসে প্রথম মহিলা ভাইস-প্রেসিডেন্টকে উৎসাহ জোগাবেন। তাঁর কথায়, ‘প্রত্যেকের বাবা-মা যা বলেন, আমিও ওকে তাই বলব। ও সবকিছুই ভালোভাবে করছে। ও যদি কিছু ভুল করে, তাহলে আমি নিশ্চয়ই ওকে বলব। কিন্তু ওর সঙ্গে আমার কোনও মতানৈক্য নেই। আমি ওকে অবশ্যই ভালো কাজ চালিয়ে যেতে বলব।’

আরও পড়ুন : এইচ-১বি ভিসা ও গ্রিন কার্ড মঞ্জুরে ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা বাইডেনের

বিশেষজ্ঞদের মতে, হ্যারিসের পথ চলা সবে শুরু হয়েছে। এবার মার্কিন মুলুকের মানুষের বিপুল আশা-প্রত্যাশা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বালাচন্দ্রনের কথায়, ‘দলের থেকে অনেক প্রত্যাশা আছে। (জো) বাইডেন এবং হ্যারিসের থেকে অনেক প্রত্যাশা আছে। আপনি টেলিভিশনে দেখতে পাবেন, আমেরিকার মানুষর মধ্যরাত পর্যন্ত পার্টি করছে।’

বন্ধ করুন