এ বছর দিল্লির শীতে এই দৃশ্য আর দেখা যাচ্ছে না। সৌজন্যে টুইটার।
এ বছর দিল্লির শীতে এই দৃশ্য আর দেখা যাচ্ছে না। সৌজন্যে টুইটার।

বাঘা শীতে অরক্ষিত গলা! ভক্তের কৌতূহল মেটালেন ‘মাফলারম্যান’

  • বেশ কয়েক দিন আগেই তিনি মাফলারের সঙ্গ ত্যাগ করেছেন। তবে বিষয়টি সকলের নজর এড়িয়ে গিয়েছে বলে তিনি জানান। সেই সঙ্গে রাজধানীর প্রচণ্ড ঠান্ডার কথা উল্লেখ করে সবাই সাবধানে থাকার পরামর্শও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

জাঁকিয়ে শীতে মাফলার হারিয়েছেন ‘মাফলারম্যান’। রহস্য ফাঁস না করলেও ঘটনাটি যে এযাবত সকলের চোখ এড়িয়ে গিয়েছে, তা মনে করালেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

দিল্লিতে শৈত্যপ্রবাহ বইছে, অথচ মাফলারে গলা ঢাকেননি আম আদমি পার্টি প্রধান। অনভ্যস্ত চোখে বিষয়টি ধরা পড়লে স্বয়ং কেজরিওয়ালের কাছেই কারণ জানতে চেয়ে টুইট করেন এক ভক্ত।

জবাবে কেজরি বলেন, বেশ কয়েক দিন আগেই তিনি মাফলারের সঙ্গ ত্যাগ করেছেন। তবে বিষয়টি সকলের নজর এড়িয়ে গিয়েছে বলে তিনি জানান। সেই সঙ্গে রাজধানীর প্রচণ্ড ঠান্ডার কথা উল্লেখ করে সবাই সাবধানে থাকার পরামর্শও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজনৈতিক জীবনের গোড়ায় শীতে তাঁর মাফলার ব্যবহার নিয়ে প্রায়ই বিরোধীদের কটাক্ষের শিকার হয়েছেন কেজরি। সব সময় তাঁর গলায় মাফলার দেখা যায় বলে তাঁর ‘মাফলারম্যান’ নামকরণ করে বিরোধী শিবির। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে এই বিষয়ে অগুনতি মিমও তৈরি হয়।

তবে তির্যক ভঙ্গির এই নামকরণকে অস্ত্র হিসেবে কাজে লাগান কেজরিওয়ালের ভক্তরা। নির্বাচনী প্রচারে তাঁরা স্লোগান দেন, ‘মাফলারম্যান রিটার্নস।’ ২০১৫ সালে বিধানসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ গরিষ্ঠতা পেয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেন কেজরিওয়াল। কিন্তু তবু তাঁর গায়ে সেই মাফলার ম্যান তকমা সেঁটে থাকে।

অনেকে আবার তাঁকে শীতের আগাম বার্তাবাহক হিসেবেও চিহ্নিত করেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল জনপ্রিয় হয়ে ওঠে হ্যাশট্যাগ #MufflerMan।

এমনকি সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সরকারি বিজ্ঞাপনে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ দেখানো বন্ধ হলে দিল্লিতে জোড়-বেজোড় নম্বরপ্লেটযুক্ত গাড়ি চলাচলের বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হলে তাতে এক ব্যক্তির পিছন ফেরা ছবি ছাপা হয়, যেখানে তাঁর গলা ও মাথা মাফলারে ঢাকা থাকে। বলা বাহূল্য, লোকের চিনে নিতে অসুবিধে হয়নি মাফলারের আসল মালিককে।

বন্ধ করুন