বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 100 Days’ Work Money: কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক ‘ফলপ্রসূ’, মিটবে ১০০ দিনের কাজের বকেয়ার জট?

100 Days’ Work Money: কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক ‘ফলপ্রসূ’, মিটবে ১০০ দিনের কাজের বকেয়ার জট?

ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য সঞ্জীব কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস

১০০ দিনের কাজের বকেয়া অর্থ নিয়ে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহর সঙ্গে সোমবারের বৈঠক করেন রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী প্রদীপ মজুমদার।

১০০ দিনের কাজ নিয়ে সম্প্রতি রাজ্য যে রিপোর্ট কেন্দ্রকে পাঠিয়েছিল, তাতে ১৫টি জেলার তথ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল কেন্দ্র। এই আবহে বকেয়া অর্থ নিয়ে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহর সঙ্গে সোমবারের বৈঠক করেন রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী প্রদীপ মজুমদার। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা শেষে প্রদীপবাবু দাবি করেন, ‘বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে।’ এই আবহে পঞ্চায়েত ভোটের আগে ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকার জট খোলার আশা দেখছে রাজ্য সরকার।

উল্লেখ্য, রাজ্য সরকারের অভিযোগ, গত বছর ডিসেম্বর মাস থেকে কেন্দ্রের তরফে ১০০ দিনের কাজের পাওনা টাকা দেওয়া হয়নি রাজ্যকে। ১০ মাসে প্রায় সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা পাওনা বকেয়া রয়েছে এই প্রকল্পে। এই আবহে বৈঠকের পর গিরিরাজ সিংহ নাকি প্রদীপবাবুকে বকেয়া মেটানোর আশ্বাস দিয়েছেন। প্রদীপবাবু দাবি করেন, রাজ্যের পাঠানো নথি দেখে পুরো বিষয়টি বুঝেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আশা করি, খুব দ্রুত সব কিছু মিটে যাবে।’

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের তরফে স্পষ্ট জানানো হয়েছিল ঠিকমতো কাজ না হলে রাজ্যকে টাকা দেওয়া হবে না। তারপরেই রাজ্যের কাছে রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছিল কেন্দ্র। সেইমতো গত সেপ্টেম্বরে রাজ্য সরকার কেন্দ্রের কাছে অ্যাকশন টেকন রিপোর্ট জমা দিয়েছিল। ৩ নভেম্বর কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্যকে সেই রিপোর্ট নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে চিঠি পাঠানো হয়। এরপরই ১৫টি জেলাকে (নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, দুই মেদিনীপুর, দুই চব্বিশ পরগনা, কোচবিহার, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, বীরভূম এবং দুই দিনাজপুর) নতুন করে অ্যাকশন টেকন রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কেন্দ্র ওই ১৫ জেলা নিয়ে প্রশ্ন তোলার পরই এই নির্দেশ দিয়েছিল নবান্ন। নবান্নের নির্দেশ, আগামী ১৪ নভেম্বরের মধ্যে এই রিপোর্ট পাঠাতে হবে। এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে জট কাটার দাবি করলেন রাজ্যের মন্ত্রী।

বন্ধ করুন