বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > যোগীরাজ্যে দু'মুঠো অন্ন জোগাড় করতে গিয়ে পুলিশের ‘মার’ খেয়ে প্রাণ হারাল কিশোর!
কার্ফু ভেঙে সবজি বিক্রি করায় ফয়সালকে পুলিশ ধরে নিয়ে যায় (ছবি সৌজন্যে টুইটার)
কার্ফু ভেঙে সবজি বিক্রি করায় ফয়সালকে পুলিশ ধরে নিয়ে যায় (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

যোগীরাজ্যে দু'মুঠো অন্ন জোগাড় করতে গিয়ে পুলিশের ‘মার’ খেয়ে প্রাণ হারাল কিশোর!

  • কার্ফু ভেঙে সবজি বিক্রি করতে গিয়ে পুলিশের মারে প্রাণ হারিয়েছে উন্নাওয়ের ১৭ বছর বয়সী কিশোর ফয়সাল।

চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে খাবার জোগাড় করার উপায় খুঁজে বেরাচ্ছেন অনেকেই। এই আবহে অনেকেই 'আইন' ভাঙতেও বাধ্য হচ্ছেন। তবে এবার উত্তরপ্রদেশে পেট ভরাতে গিয়ে প্রাণ হারাতে হল ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরকে। কার্ফু ভেঙে সবজি বিক্রি করতে গিয়ে পুলিশের মারে প্রাণ হারিয়েছে উন্নাওয়ের ১৭ বছর বয়সী কিশোর ফয়সাল।

অভিযোগ, উত্তরপ্রদেশের উন্নাওতে পুলিশের মারে প্রাণ হারিয়েছে পেশায় সবজি বিক্রেতা এক কিশোরের৷ ঘটনা জানাজানি হতেই অভিযুক্ত দুই পুলিশ কনস্টেবলকে সাসপেন্ড করা হয়৷ বরখাস্ত করা হয় এক হোমগার্ডকেও৷ পরে চাপের মুখে অভিযুক্তদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। এই ঘটনা জানাজানি হতেই পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে৷

জানা গিয়েছে, শুক্রবার করোনা-কার্ফু চলাকালীন বাড়ির সামনেই রাস্তায় সবজি বিক্রি করছিল সে৷ পরিবারের অভিযোগ, ছেলেটি যখন সবজি বিক্রি করছিল, ঠিক সেই সময়েই সেখানে পৌঁছায় পুলিশ৷ কার্ফু ভাঙার অভিযোগে ওই কিশোরকে জোর করে তুলে নিয়ে যায় তারা৷ এরপর থানায় নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় তাকে৷ তাতেই অসুস্থ হয়ে পড়ে ছেলেটি৷ অবস্থার অবনতি হওয়ায় দ্রুত তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়৷ চিকিৎসকরা সেখানেই ওই কিশোরকে পরীক্ষা করে তাকে মৃত ঘোষণা করেন৷

ঘটনার কথা জানাজানি হতেই সাধারণ মানুষের মধ্যে জন্ম নেয় ক্ষোভ। পুলিশি অত্যাচারের প্রতিবাদে রাস্তায় নামেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ তাঁরা দোষী পুলিশ কর্মীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন৷ পাশাপাশি, মৃত কিশোরের পরিবারের একজনের জন্য সরকারি চাকরি এবং পরিবারটিকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও দাবি উঠেছে৷

বন্ধ করুন