বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জিনস–টপ পরায় কিশোরীকে পিটিয়ে মারল পরিবার, গ্রেফতার অভিযুক্ত সদস্যরা
সকলকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। (প্রতীকী ছবি)
সকলকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। (প্রতীকী ছবি)

জিনস–টপ পরায় কিশোরীকে পিটিয়ে মারল পরিবার, গ্রেফতার অভিযুক্ত সদস্যরা

  • কিশোরীর আধুনিক পোশাক মেনে নিতে পারছিলেন না বাড়ির সদস্যরা।

যত কাণ্ড যোগী–রাজ্যে!‌ এবার পোশাক ফতোয়ায় প্রাণ গেল এক ১৭ বছরের কিশোরীর। অপরাধ মেয়েটি জিনস পরেছিল। আর তাই নিজেরই নাতনিকে পিটিয়ে মেরে ফেলল দাদু ও কাকা। এমনকী এই অপরাধ ঢাকতে দেহ জলে ফেলে দেওয়া হল। সুতরাং শেষমেশ যেতে হল শ্রীঘরে। এই অমানবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল উত্তরপ্রদেশ। প্রকট হল নারী বিপন্নতার ছবি।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ১৭ বছরের ওই কিশোরী বাবার সঙ্গে লুধিয়ানায় থাকত। এবার সে গ্রামের বাড়িতে এসেছিল। কিশোরীর আধুনিক পোশাক মেনে নিতে পারছিলেন না বাড়ির সদস্যরা। কারণ জিনস, টপ, ট্রাউজার পরত এই কিশোরী। এই নিয়ে সমস্যার সূত্রপাত। আর তাই কাকা ও ঠাকুরদা পোশাক নিয়ে ধমক দিত। হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। যাতে কর্ণপাত করত না ওই কিশোরী। এবার বিষয়টি নিয়ে তীব্র কথা কাটাকাটি হয়। আর তা থেকেই এই ঘটনা ঘটে গেল।

এত বচসার পরও জিনসই পরত কিশোরী। তাই তাকে বেধড়ক মারতে থাকে তার ঠাকুরদা ও কাকা। মারের চোটে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ওই কিশোরী। তখন তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে আত্মীয়রা। কিন্তু পথেই মারা যায় কিশোরী। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই ভয় পেয়ে যায় পরিবারের সদস্যরা। তখন বিকল্প পথ হিসাবে এক সেতু থেকে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয় কিশোরীর মৃতদেহ। কিন্তু দেহটি জলে না পড়ে মাঝপথে ঝুলতে থাকে। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই হাজির হয় পুলিশ। দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, কিশোরীর মামা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তার ঠাকুরদা–সহ চারজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। তাঁদের সকলকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। এমনকী এক অটো চালককেও গ্রেফতার করা হয়েছে। কারণ এই অটো চালক কিশেরীর দেহটি সেতু থেকে ফেলতে সাহায্য করেছিল। তবে কাকা এখনও পলাতক।

বন্ধ করুন