বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জম্মু-কাশ্মীরে সক্রিয় ৭৮ পাকিস্তানিসহ ১৭২ জঙ্গি, গত তিন মাসে হামলা হয়েছে ৩৫টি

জম্মু-কাশ্মীরে সক্রিয় ৭৮ পাকিস্তানিসহ ১৭২ জঙ্গি, গত তিন মাসে হামলা হয়েছে ৩৫টি

বিগত তিন মাসে জঙ্গি সংগঠনে স্থানীয় যুবকদের যোগের হার উল্লেখযোগ্যভাবে কম। (HT_PRINT)

বিগত তিন মাসে জঙ্গি সংগঠনে স্থানীয় যুবকদের যোগের হার উল্লেখযোগ্যভাবে কম।

সোমবার ভারতীয় সেনাবাহিনীর নর্দার্ন কমান্ড জানিয়েছে যে জম্মু ও কাশ্মীরে এখনও ১৭২ জন জঙ্গি সক্রিয় এবং তাদের মধ্যে ৭৮ জন বিদেশি। সম্প্রতি ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে নর্দার্ন কমান্ড। সেই নথি অনুসারে, অঞ্চলে ১৭২ জন সন্ত্রাসবাদীর মধ্যে ১৫৬ জন কাশ্মীরি এবং মাত্র ১৬ জন জম্মু অঞ্চলে সক্রিয় ছিল।

সেনার তথ্য অনুসারে, কাশ্মীরের ১৫৬ জন জঙ্গির মধ্যে ৭৭ জন বিদেশি জঙ্গি এবং বাকি ৭৯ জন স্থানীয় উগ্রপন্থী। পীর পাঞ্জালের দক্ষিণে জম্মু অঞ্চল স্থানীয় জঙ্গির সংখ্যা ১৪ এবং বিদেশি ভাড়াটে সশস্ত্র জঙ্গির সংখ্যা দুই। নর্দার্ন কমান্ডের মুখপাত্র কর্নেল অভিনব নবনীতের দেওয়া তথ্য অনুসারে, মার্চ পর্যন্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ৯৩ জন স্থানীয় জঙ্গি এবং ৭৯ জন বিদেশি জঙ্গি ছিল। যার অর্থ, জম্মু ও কাশ্মীরে মোট সক্রিয় সন্ত্রাসীদের প্রায় ৪৬ শতাংশ বিদেশি। এই অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদকে ইন্ধন দিতে পাকিস্তান এই জঙ্গিদের পাঠিয়েছে কাশ্মীরে।

তথ্য আরও প্রকাশ করেছে যে জঙ্গিরা এই বছরের প্রথম তিন মাসে জম্মু ও কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর উপর ২৭টি হামলা চালিয়েছে। অসহায় সাধারণ নাগরিকদের উপর হামলার আটটি ঘটনাও ঘটেছে এই সময়কালে। তবে সাম্প্রতিক তথ্য অনুসারে, কাশ্মীরি যুবকরা অনেক কম সংখ্যায় জঙ্গি সংগঠনগুলির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে। এর আগে যখন কাশ্মীরে রোজ গড়ে ১৫ জন করে যুবক জঙ্গিদের সঙ্গে যোগ দিত, সেখানে গত তিন মাসে মাত্র ১৫ জন স্থানীয় যুবক জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যোগ দিয়েছে নতুন করে। এদিকে বছরের প্রথম তিন মাসে কোনও জঙ্গি আত্মসমর্পণ করেনি। তবে সেনা ২৩টি অস্ত্র উদ্ধার করেছে যা পাকিস্তান দিয়েছিল এই জঙ্গিদের। তবে এই তিন মাসে সীমান্তবর্তী গ্রামের মানুষরা বেশ শান্তিতে ছিলেন কারণ সীমান্তে একটি সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেনি।

বন্ধ করুন