বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Ethnic Killing: চোখের নিমেষে ২০০ জনকে হত্যা জাতির নামে! ইথিওপিয়ায় রক্তাক্ত সংহারে ত্রস্ত প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা
ইথিএপিয়ার পুলিশ। প্রতীকী ছবি। (Photo by Amanuel Sileshi / AFP) (AFP)

Ethnic Killing: চোখের নিমেষে ২০০ জনকে হত্যা জাতির নামে! ইথিওপিয়ায় রক্তাক্ত সংহারে ত্রস্ত প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা

  • জানা গিয়েছে, অনেকেই এই জাতি সংহারের জেরে তড়িঘড়ি এলাকা ছেড়ে চলে যেতে চাইছেন। চোখের সামনে স্বজনের হত্যার স্মৃতি বুকে নিয়ে সকলেই চাইছেন নিরাপত্তা। জানা যায়, ইথিওপিয়ায় ৩০ বছর আগে আমহারা গোষ্ঠী বসবাস শুরু করে। অনেকেই বলছেন, 'এখন তাঁদের মুরগির মতো করে কেটে ফেলা হয়'।

এক অভিশপ্ত রবিবার দেখেছে ইথিওপিয়া। সেখানের ওরমিয়া এলাকায় ওরোমিয়ায় জাতি- বিদ্বেষের জেরে খুঁজে খুঁজে আমহারা গোষ্ঠীর ২০০ জনকে খুন করা হয়েছে বলে খবর। গোটা ঘটনায় কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয়েছে সেখানের এক বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে।

২০০ জনের হত্যাকাণ্ড চোখের সামনে হতে দেখেছেন বহু মানুষ। যে প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, 'ভয়ঙ্করতম ঘটনা এটি'। আফ্রিকার দ্বিতীয় বৃহত্তম জনগোষ্ঠীর দেশ ইথিওপিয়া। সেখানে এমন নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এক প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন, 'আমি একাই গুণেছি ২৩০ টি দেহ। আঅমার জীবনে দেখা নাগরিকদের ওপর এটি ভয়ঙ্করতম ঘটনা।' অপর এক প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন, এতগুলি কবর একসঙ্গে তিনি কখনওই খুঁড়তে দেখেননি। তিনি বলছেন, ২০০ জনের শেষকৃত্যের জন্য 'গণকবর' খোঁড়া হয়েছে। অনেকেই বলছেন, সেনা নেমেছে এলাকায়। তবে হামলা আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন তাঁরা। বাজ পড়ে বিহারে ১৭ জনের মৃত্যু, নীতীশ সরকারের ক্ষতিপূরণ ঘোষণা

জানা গিয়েছে, অনেকেই এই জাতি সংহারের জেরে তড়িঘড়ি এলাকা ছেড়ে চলে যেতে চাইছেন। চোখের সামনে স্বজনের হত্যার স্মৃতি বুকে নিয়ে সকলেই চাইছেন নিরাপত্তা। জানা যায়, ইথিওপিয়ায় ৩০ বছর আগে আমহারা গোষ্ঠী বসবাস শুরু করে। অনেকেই বলছেন, 'এখন তাঁদের মুরগির মতো করে কেটে ফেলা হয়'। এই জাতি বিদ্বেষের জেরে আমহারাদের খুনের দায় চেপেছে ওরোমো লিবারেশন আর্মির ওপর। যদিও ওরোমো লিবারেশন আর্মির দাবি এই হত্যা সেদেশের সেনা করেছে। উল্লেখ্য, জাতিগত দিক থেকে ইথিওপিয়ায় প্রায়সই নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনা উঠে আসে। আর রবিবারের ঘটনা তার থেকে আলাদা নয়।

 

বন্ধ করুন