বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মেলাতে পাথর ছোঁড়ার রীতি পালন করতে গিয়ে ৩০০জন জখম, ৪৩জনের অবস্থা গুরুতর
মেলার সামনের নদীতে পাথর ছোঁড়াছুড়ি, জখম ৩০০জন (ফাইল ছবি) (প্রতীকী ছবি)
মেলার সামনের নদীতে পাথর ছোঁড়াছুড়ি, জখম ৩০০জন (ফাইল ছবি) (প্রতীকী ছবি)

মেলাতে পাথর ছোঁড়ার রীতি পালন করতে গিয়ে ৩০০জন জখম, ৪৩জনের অবস্থা গুরুতর

  • জেলা শাসক সৌরভ সুমন বলেন, সব ভিডিও ফুটেজ আমাদের কাছে আছে। আইনভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে আমরা কড়া ব্যবস্থা নেব।

মেলাতে পাথর ছোঁড়ার রীতি। আর সেই রীতি পালন করতে গিয়েই  মধ্যপ্রদেশের ছিন্দওয়াড়াতে জখম অন্তত ৩০০ জন। তার মধ্যে ৪৩জন গুরুতর জখম হয়েছেন। গুরুতর জখমদের নাগপুরের একটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। ছিন্দওয়াড়ার মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক ডঃগীরিশ চৌরাশিয়া জানিয়েছেন বেশিরভাগেরই হাতে ও পায়ে আঘাত লেগেছে। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, প্রায় ৩০০ বছর ধরে এই গোতমার মেলা হয়ে আসছে। রীতি অনুসারে পানধুর্না ও সাওয়ার গ্রামের মাঝে জাম নদীতে একটি পতাকা পুঁতে রাখা হয়। এরপর নদীর দুই পাড় থেকে পাথর ছোঁড়া শুরু হয়। তার মধ্যে পতাকাটা যে খুলে নিতে পারবে তারাই লড়াইতে জিতবে।তবে এই ধরনের রীতি পালনের ক্ষেত্রে আগে থেকেই প্রশাসনিক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু সেসব উপেক্ষা করেই পাথর ছোঁড়া শুরু হয়ে যায়। 

পুলিশ সুপার গৌরব তিওয়াড়ি বলেন, দুটি গ্রামের লোকজনকেই আমরা জানিয়েছিলাম যাতে এই ধরনের রীতি কমিয়ে দেওয়া হয়। তাঁরা রাজিও হয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু আচমকাই তাঁরা বেরিয়ে পড়েন। তবে পতাকাটিকে খুলে নিয়ে আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেছি। তবে এবার আবার গুলতি ব্যবহার করা হয়েছিল বলেও অভিযোগ। জেলা শাসক সৌরভ সুমন বলেন, সব ভিডিও ফুটেজ আমাদের কাছে আছে। আমরা কড়া ব্যবস্থা নেব।

 

বন্ধ করুন