বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > এক বছরে ৩৬৪টি প্রাণী এবং ২৫৩টি নতুন উদ্বিদ প্রজাতির সন্ধান মিলেছে ভারতে
২০১৯ সালে ভারতে কমপক্ষে ৩৬৪টি নতুন প্রাণী প্রজাতি এবং ২৫৩ প্রজাতির নতুন উদ্বিদ আবিষ্কৃত হয়েছে।
২০১৯ সালে ভারতে কমপক্ষে ৩৬৪টি নতুন প্রাণী প্রজাতি এবং ২৫৩ প্রজাতির নতুন উদ্বিদ আবিষ্কৃত হয়েছে।

এক বছরে ৩৬৪টি প্রাণী এবং ২৫৩টি নতুন উদ্বিদ প্রজাতির সন্ধান মিলেছে ভারতে

  • এ ছাড়া, আরও ১১৬ প্রজাতির পশু চিহ্নিত করা গিয়েছে, যাদের বিশ্বের অন্যত্র সন্ধান মিললেও ভারতে দেখা যায়নি।

২০১৯ সালে ভারতে কমপক্ষে ৩৬৪টি নতুন প্রাণী প্রজাতি এবং ২৫৩ প্রজাতির নতুন উদ্বিদ আবিষ্কার করেছেন এ দেশের বিজ্ঞানীরা। এই ৩৬৪ প্রজাতির প্রাণী এ যাবৎ মানুষের চোখের অন্তরালে থাকলেও আরও ১১৬ প্রজাতির প্রাণী চিহ্নিত করা গিয়েছে, যাদের বিশ্বের অন্যত্র সন্ধান মিললেও ভারতে দেখা যায়নি।

নতুন আবিষ্কৃত জীবজগতের এই সমস্ত সদস্যদের তথ্য সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে জুওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া এবং বট্যানিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া প্রকাশিত দুটি বইয়ে। কলকাতায় এই দুই প্রতিষ্ঠানের সদর দফতরে শুক্রবার বইগুলির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ দফতরের মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।  

জুওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার অধিকর্তা কৈলাস  চন্দ্র জানিয়েছেন, ‘যে ৬৩৪টি প্রাণী প্রজাতি আবিষ্কৃত হয়েছে, তার মধ্যে চারটি পাওয়া গিয়েছে জীবাশ্মের আকারে। তালিকায় রয়েছে চারটি উপ-প্রজাতিও। বেশিরভাগ নতুন দেখা প্রজাতি পোকা শ্রেণিরই অন্তর্গত। তবে তালিকায় সরীসৃপ, মাছ ও উভচর প্রাণীও রয়েছে।’ 

নতুন পাওয়া সদস্যদের জুড়ে বর্তমানে ভারতে প্রাপ্ত প্রাণী প্রজাতির সংখ্যা দাঁড়াল মোট ১,০২,১৬১ টি। এর মধ্যে রয়েছে এককোষী প্রাণী থেকে হাতি ও বাঘের মতো বিশালাকার পশুও। সেই সঙ্গে ৫০,০০০ প্রজাতির উদ্বভিদেরও সন্ধান পাওয়া গিয়েছে ভারতে। 

মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ‘আন্তর্জাতিক জীব বৈচিত্র মণ্ডলের অন্যতম সদস্য ভারত। এই কারণে নিজেদের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় জৈবিক উৎসগুলি আমাদের যথাযথ নথিভুক্ত করে রাখা দরকার। এই সমস্ত উৎস থেকে প্রাপ্ত উপকারিতাও কাজে লাগানো প্রয়োজন।’

পৃথিবীতে এ পর্যন্ত প্রায় ১৮ লাখ প্রজাতির প্রজাতি খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। বিজ্ঞানীদের হিসেবে, বিশ্বে কমপক্ষে তিন থেকে পাঁচ কোটি প্রজাতি রয়েছে। জীব বৈচিত্র্যের নিরিখে সমগ্র তালিকায় ১.০২ লাখ প্রজাতি নিয়ে ভারতের স্থান অষ্টমে।

বন্ধ করুন