বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Hilsa: বাংলাদেশ: রুপোলি শস্যের ছড়াছড়ি! গত বছরের তুলনায় জালে ধরা পড়ল ৪-৫ গুণ ইলিশ
বাংলাদেশে ব্যাপক মাত্রায় ধরা পড়েছে ইলিশ। 

Hilsa: বাংলাদেশ: রুপোলি শস্যের ছড়াছড়ি! গত বছরের তুলনায় জালে ধরা পড়ল ৪-৫ গুণ ইলিশ

  • Hilsa in Bangladesh: বৃষ্টি বিমুখ হলেও রুপোলি শস্য কিন্তু এবার মোটেই বিমুখ নয় বাংলাদেশের প্রতি! গত বছরের তুলনায় এবার জালে ধরা পড়ল ৪-৫ গুণ বেশি ইলিশ।

বাংলাদেশে এক মাস বন্ধ ছিল সমুদ্রে মাছ ধরা। অবশেষে ৬৫ দিন পর ২৩ জুলাই থেকে ফের সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন বাংলাদেশের জেলেরা। আর এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পরেই যেন জেলেদের ভাগ্য প্রসন্ন হল। গত বছরের তুলনায় এবার তাঁদের জালে ধরা পড়ছে ৪-৫ গুণ বেশি মাছ। বাংলাদেশী জেলেদের মতে তাঁরা গত বছর যে পরিমাণ ইলিশ পেয়েছিলেন এবার তার থেকে অনেক বেশি ইলিশ পাচ্ছেন। আর অধিকাংশ মাছের আকার এবং ওজন দুইই বড়। 

কুয়াকাটার মহিপুরে মাছের যে বন্দর আছে সেখানকার একজন জেলে হালিম শিকদার জানিয়েছেন নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর মাত্র এক সপ্তাহে তাঁরা কুড়ি থেকে পঁচিশ মণ ইলিশ ধরেছেন। গত বছর এই সংখ্যাটা ছিল পাঁচ থেকে সাত মণ। হালিম শিকদার একা নন, তাঁর মতো বাকি জেলেরাও এত পরিমাণ মাছ পেয়ে দারুন খুশি! তাঁর কথা অনুযায়ী এই সময়ে তাঁরা যদি সাগরে চার পাঁচ দিনও থাকেন তাহলে তাঁরা কখনও কুড়ি মণ তো কখন পঁচিশ তো আবার কখনও ত্রিশ মণ অবধি ইলিশ মাছ পাচ্ছেন। ফলে এই কদিনেই তাঁরা চার থেকে পাঁচ লক্ষ টাকার মাছ ধরতে পেরেছেন। আর প্রতিটা মাছের সাইজ বেশ ভাল বলেই জেলেদের তরফে জানানো হয়েছে। 

বাংলাদেশে এবার অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক কম বৃষ্টিপাত হয়েছে। ব্যাপক বৃষ্টির ঘাটতি দেখা দিয়েছে। ফলে একটা আশঙ্কা তৈরি হচ্ছিল যে মাছের উৎপাদন তবে কমে যাবে না তো। কিন্তু তেমনটা না হওয়ায় সকলেই খুশি। ট্রলার ভর্তি মাছ আসছে যখন আড়তদার থেকে খুচরো ব্যবসায়ী সকলের মুখেই রয়েছে চওড়া হাসি। 

একজন মাছের আড়তদার জানিয়েছেন বহুদিন মাছ ধরা বন্ধ থাকার ফলে ইলিশ মাছগুলো বড় হওয়ার সুযোগ পেয়েছে। এই কারণে জালে কখনও ৮০০ গ্রামের ইলিশ উঠছে তো কখনও দেড় কেজি তো আবার কখনও দুই কেজি অবধি ইলিশ উঠছে! তাঁর কথা অনুযায়ী যদি গড়ে প্রতি ট্রলার ২০ মন করে মাছ ধরে তাহলে বন্দরে ২০০ ট্রলার থাকলে মোট ৪ হাজার মণ ইলিশ ধরা হচ্ছে গড়ে। এত ইলিশ পেয়ে জেলে থেকে খুচরো ব্যবসায়ী কিংবা ক্রেতা সকলেই দারুন খুশি! বিশেষজ্ঞদের মতে বাংলাদেশ সীমান্তে জেলেদের মাছ ধরা বন্ধ করার কারণেই এত পরিমাণ মাছ উঠছে জালে।

বন্ধ করুন