সাংবাদিক জামাল খাসোগি
সাংবাদিক জামাল খাসোগি

সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ডে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

  • দণ্ডিতরা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন জানাতে পারেন। খাসোগি হত্যায় সৌদি রাজকুমারের প্রাক্তন পরামর্শদাতা সাউদ অল-কাহতানির জড়িত থাকার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে ইস্তানবুলের তত্কালীন সৌদি কনসাল-জেনারেল মহম্মদ আল-ওতাইবিকেও।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যামামলায় ৫ অভিযুক্তকে মৃত্যুদণ্ড দিল সৌদি আরবের আদালত। অভিযুক্ত বাকি তিন জনের প্রত্যেককে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

২০১৮ সালে ইস্তানবুলের সৌদি দূতাবাসে ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার সাংবাদিক জামাল খাসোগি খুনের ঘটনায় আন্তর্জাতিক স্তরে তীব্র সমালোচিত হন সৌদি রাজকুমার মহম্মদ বিন সলমন। হত্যায় যে সৌদি নাগরিকরা জড়িত, তারা সকলেই তাঁর অধীনস্থ কর্মচারী বলে অভিযোগ ওঠে। যদিও মহম্মদ বিন সলমনের সঙ্গে ওই হত্যাকাণ্ডের কোনও যোগ নেই বলে জানিয়ে দেয় সৌদি সরকার।

এ দিন সৌদি আরবের সরকারি টিভি চ্যানেল আল-এখবারিয়া জানিয়েছে, দণ্ডিত ৮ জন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন জানাতে পারেন। টিভি চ্যানেল সূত্রে খবর, খাসোগি হত্যায় সৌদি রাজকুমারের প্রাক্তন পরামর্শদাতা সাউদ অল-কাহতানির জড়িত থাকার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। যদিও কাহতানি ওই অপরাধে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত ছিলেন দাবি করে এর আগেই তাঁর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে আমেরিকা।

সৌদি আদালতের বিচারে হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে ইস্তানবুলের তত্কালীন সৌদি কনসাল-জেনারেল মহম্মদ আল-ওতাইবিকেও। এ দিন রায় ঘোষণার পরে তাঁকে জেল থেকে ছাড়া হয়েছে।

নয়টি শুনানির পরে আদালত জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্তদের কারও বিরুদ্ধে খাসোগিকে খুন করার দীর্ঘমেয়াদি ষড়যন্ত্রের প্রমাণ মেলেনি।

জামাল খাসোগি হত্যা মামলার বিচারে সম্পূর্ণ গোপনীয়তা অবলম্বন করা হয়েছে। তুরস্কের কয়েক জন কূটনীতিক এবং খাসোগি পরিবারের সদস্য ছাড়া কাউকে বিচারসভায় উপস্থিত থাকার অনুমোদন দেয়নি সৌদি সরকার। খাসোগি হত্যা মামলায় মোট ১১ জন সৌদি নাগরিক জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছিল।

বন্ধ করুন