বাড়ি > ঘরে বাইরে > 74th Independence Day:করোনায় অতিথি ১৫০০ থেকে কমে ১০০,রাষ্ট্রপতি ভবনের অনুষ্ঠানে নাও থাকতে পারেন ২ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী
স্বাধীনতা দিবসের আলোয় ঝলমল করছে রাষ্ট্রপতি ভবন (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
স্বাধীনতা দিবসের আলোয় ঝলমল করছে রাষ্ট্রপতি ভবন (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

74th Independence Day:করোনায় অতিথি ১৫০০ থেকে কমে ১০০,রাষ্ট্রপতি ভবনের অনুষ্ঠানে নাও থাকতে পারেন ২ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী

  • আমন্ত্রণ তালিকায় ঠাঁই পাননি রাষ্ট্রমন্ত্রীরাও।

অন্যবার স্বাধীনতা দিবসে রাষ্ট্রপতির ভবনের অনুষ্ঠানে অসংখ্য রাজনৈতিক নেতা, ভিভিআইরা আমন্ত্রিত থাকেন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে এবার ১১০ জনের বেশি উপস্থিত থাকছেন না। এমনকী প্রথমবারের কোনও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীও সেই অনুষ্ঠানে থাকবেন না।

আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্রথামাফিক অনুষ্ঠানে মনমোহন সিং, এইচ ডি দেবগৌড়া যোগ দেবেন বলে মনে হচ্ছে না। দুই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও আরও কয়েকজন ভিভিআইপি অনুষ্ঠান এড়িয়ে যেতে পারেন। সদ্য করোনা-মুক্ত হওয়ার পর চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে বাড়িতে নিভৃতবাসে থাকবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন না তিনি। সদ্য হাসপাতালে ভরতি থাকা কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী রাষ্ট্রপতি ভবনের কনভেনশন সেন্টারে হাজির থাকার সম্ভাবনা কার্যত নেই। শনিবার সকালে কংগ্রেসের সদর দফতরে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সময়ও তিনি ছিলেন না। রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদও দলের সভাপতির পথেই হাঁটতে পারেন।

একইসঙ্গে , প্রথমবার আমন্ত্রিতদের সঙ্গে তাঁদের সঙ্গীরা উপস্থিত থাকবেন না। থাকবেন না কোনও স্বাধীনতা সংগ্রামী। করোনা পরিস্থিতিতে একাধিক নয়া নিয়মের মধ্যে অনুষ্ঠান হওয়ায় থাকবে না খাবার কাউন্টার। ভিভিআইপিদের আলাপচারিতার ক্ষেত্রে থাকছে বিধিনিষেধ।

অন্যবার যেখানে ১,৫০০ জন আমন্ত্রিত থাকেন, এবার সেই সংখ্যাটা কমে দাঁড়াচ্ছে ১০০-র কাছাকাছি। তাঁদের মধ্যে ২৬ জন করোনা যোদ্ধা থাকবেন এবং তাঁদের প্রশংসা করে সংক্ষিপ্ত ভাষণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করবেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সিঙাড়া, ধোকলা, চা-সহ প্রথামতো খাবার পরিবেশন করবেন হাতেগোনা কয়েকজন। তাঁদের সকলেরই করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। প্রত্যেক আমন্ত্রিতের নির্দিষ্ট টেবিল থাকবে। তাঁদের সেখানেই বসতে পারে। দেশের বিভিন্ন নদীর নামে সেই টেবিলের নামকরণ করা হয়েছে। 

এক আধিকারিক জানিয়েছেন, অন্যবার দু'ঘণ্টা থেকে আড়াই ঘণ্টা অনুষ্ঠান হলেও এবার তা এক ঘণ্টার বেশি হবে না। যেহেতু অনেক ভিভিআইপিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি, তাই এখনও মনে হতে পারে যে এলোমেলোভাবে আমন্ত্রিতদের বেছে নেওয়া হয়েছে। এমনকী আমন্ত্রণ তালিকায় ঠাঁই পাননি রাষ্ট্রমন্ত্রীরাও। ওই আধিকারিক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সুরক্ষা বিষয়ক মন্ত্রিসভার কমিটি (প্রতিরক্ষা, স্বরাষ্ট্র, বিদেশ ও অর্থমন্ত্রক) এবং বর্ষীয়ান কয়েকজন মন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। মন্ত্রীদের তালিকায় হয়তো ১০ জনের বেশি থাকবেন না।’

বন্ধ করুন