বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 7th Pay Commission: সরকারি কর্মচারীদের টাকা ক্লেম নিয়ে বড় নির্দেশ কেন্দ্রের

7th Pay Commission: সরকারি কর্মচারীদের টাকা ক্লেম নিয়ে বড় নির্দেশ কেন্দ্রের

CGHS কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের চিকিত্সা সহায়তার জন্য এক বিশেষ স্কিম। ছবি: পিটিআই (PTI)

কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী, এই বিশেষ তালিকাভুক্ত হাসপাতালগুলিতে একটিই বিল বানাতে হবে। অনেক হাসপাতাল CGHS-এর টাকা পেতে আলাদা বিল করছে। আবার সুবিধাভোগীর জন্য আলাদা বিল বানাচ্ছে। সেটি করা চলবে না।

একই সময়ের চিকিত্সার জন্য CGHS-এর অধীনস্থ হাসপাতালে দু'টি আলাদা আলাদা বিল বানানো যাবে না। ১০ নভেম্বর ২০২২ তারিখের এক অফিস মেমোরেন্ডামে স্পষ্ট জানিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক (MoHFW)। কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী, এই বিশেষ তালিকাভুক্ত হাসপাতালগুলিতে একটিই বিল বানাতে হবে। অনেক হাসপাতাল CGHS-এর টাকা পেতে আলাদা বিল করছে। আবার সুবিধাভোগীর জন্য আলাদা বিল বানাচ্ছে। সেটি করা চলবে না।

এই নির্দেশিকা লঙ্ঘন করা হলে তার যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনে সিজিএইচএস প্যানেল থেকেও অপসারণ করা হতে পারে, সতর্ক করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। আরও পড়ুন: ‘দুর্ভাগ্যজনক’, DA বিক্ষোভে HC-র কর্মীদের গ্রেফতারিতে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়

সেন্ট্রাল গভর্নমেন্ট হেলথ স্কিম

কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের সপ্তম বেতন কমিশনের বেসিক বেতন স্তর অনুসারে CGHS-এ তালিকাভুক্ত হাসপাতালে ওয়ার্ড বরাদ্দ করা হয়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ২০১৩ সালের নির্দেশিকা অনুযায়ী, এই তালিকাভুক্ত হাসপাতালে সুবিধাভোগী বা তাঁর পরিজনদের বাইরে থেকে আলাদাভাবে ওষুধ, চিকিত্সা সরঞ্জাম বা আনুষাঙ্গিক কিনতে বলা যাবে না। CGHS দ্বারা নির্ধারিত প্যাকেজের হারের মধ্যে যে যে চিকিত্সা প্রাপ্য, তার পুরোটাই বিনামূল্যে সরবরাহ করা হবে। এর মধ্যেই সমস্ত দাম ধরা হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক সিজিএইচএস সুবিধাভোগীদের জ্ঞাতার্থে চিকিত্সা এবং বিলিং সম্পর্কিত নিম্নলিখিত নির্দেশিকা জারি করেছে:

১. ওষুধের ক্ষেত্রে তালিকাভুক্ত হাসপাতালেরই বিশেষজ্ঞদের প্রেসক্রিপশন লাগবে। আর তাতে ওষুধের জেনেরিক নাম উল্লেখ করতে হবে। ব্র্যান্ড লেখা যাবে না।

২. হাসপাতাল থেকে একই দামের অন্য কোনও ওষুধ লিখিয়ে নেওয়া, বা বিলে পথ্যের দাম ধরা যবে না। আরও পড়ুন: এবার জলের ব্যবসায়, বিসলেরিকে ৭,০০০ কোটি টাকায় কিনে নিচ্ছে TATA গ্রুপ!

৩. অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগের নিয়ম মেনে চলতে হবে। অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এজেন্ট-সহ উচ্চ পর্যায়ের অ্যান্টিবায়োটিকের সঠিক ব্যবহারের বিষয়ে যত্নশীল হতে হবে।

৪. IV অ্যালবুমিন প্রয়োগের ক্ষেত্রেও সঠিক গাইডলাইন মানতে হবে।

বন্ধ করুন