বাড়ি > ঘরে বাইরে > শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে মৃত্যু হয়েছে ৮০ জনের, বলছে RPF রিপোর্ট

অসুস্থ থাকলে শ্রমিক ট্রেনে উঠবেন না, উপদেশ দিয়েছে ভারতীয় রেল। রেল জানিয়েছিল যে কয়েকটা দুর্ভাগ্যজনক মৃত্যুর খবরের জেরে তাদের এই অ্যাডভািইজরি। কিন্তু ঠিক কতজন মারা গিয়েছে, সেই সম্বন্ধে কিছু জানায়নি তারা। এবার হিন্দুস্তান টাইমসের সাংবাদিক আনিশা দত্তের এক্সক্লুসিভ প্রতিবেদনে উঠে এল সত্যিটা। এক, দুই, দশ নয় পয়লা মে থেকে শ্রমিক ট্রেনে মারা গিয়েছেন ৮০ জন!  রেলওয়ে পুলিশ ফোর্সের (আরপিএফ) রিপোর্ট থেকে এই তথ্য উঠে এসেছে। 

পয়লা মে শুরু হয়েছিল শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন। ২৭ মে অবধি চলেছে ৩৮৪০টি ট্রেন। প্রায় ৫০ লক্ষ পরিযায়ী বাড়ি ফিরেছেন এই ট্রেনে। বুধবার নয় জনের মৃত্যুর খবর ছিল যদিও রেল বলে অধিকাংশই আগে থেকে অসুস্থ ছিলেন। তারা চিকিত্সার জন্য বড় শহরে গিয়েছিলেন ও ট্রেন চালু হওয়ায় ফিরছিলেন। 

কিন্তু এখন জানা যাচ্ছে যে ৮০জন মারা গিয়েছেন ট্রেন যাত্রার সময়। আরপিএফ কর্তা জানিয়েছেন যে এই সংখ্যাটি সত্যি, তবে রাজ্যগুলির সঙ্গে হিসাব মেলানোর পর পুরো লিস্ট দেওয়া সম্ভব। রেলমন্ত্রকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, তারা বলে যে রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান এই সংক্রান্ত উত্তর আগেই দিয়ে দিয়েছেন। 

শুক্রবারের প্রেস কনফারেন্সে রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান ভিকে যাদব বলেন, 'যে কোনও মৃত্যুই দুঃখের। ভারতীয় রেলওয়ের ব্যবস্থা চাইছে যেখানে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লেই ট্রেন থামিয়ে তাকে নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় জীবন বাঁচানোর জন্য। এমন অনেক যাত্রীদের সাহায্য করা হয়েছে. বেশ কিছু ডেলিভারিও হয়েছে। যে সব শ্রমিকরা ফিরছেন, তাদের কষ্টের কথা কল্পনা করতে পারছি। মৃত্যুর ক্ষেত্রে স্থানীয় জোন তদন্ত করে দেখে কারণটি ও সেটা ছাড়াই অনেকে বলছে খাদ্যের অভাবে মানুষ মারা  গিয়েছেন।। সত্যিটা হলো খাদ্যের কোনও অভাব ছিল না। কিছু মৃত্যু হয়েছে, কয়েক দিনের মধ্যেই সংখ্যা প্রকাশ করা হবে।'

আরপিএফের দেওয়া সংখ্যা ফের ক্রসচেক করে দেখবে রেলমন্ত্রক। HT-র কাছে যে তথ্য আছে সেখানে দেখা যাচ্ছে ৯-২৭ তারিখের মধ্যে ৮০ জন মারা গিয়েছেন। ১-৮ তারিখের তথ্য মেলেনি। ৪-৮৫ বছরের মধ্যে ছিল মৃতদের বয়স। মূলত নর্থান রেলওয়েতে বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জোনাল রেল অফিসার জানিয়েছেন যে যাত্রীরা গরম ও ক্লান্তিতে ভোগেন এ ট্রেনগুলিতে। উত্তর রেলওয়ের মুখপাত্র বলেন যে তার কাছে সঠিক তথ্য নেই, কিন্তু তারা সবসময় চেষ্টা করেন অসুস্থদের সাহায্য করতে। কেউ না খেতে পেয়ে মারা গিয়েছে, এটা বলা ঠিক নয়। অনেক কেসেই নিজেদের অনুসন্ধানে রেল জানাচ্ছে যে আগে থেকেই অসুস্থ ছিলেন, যারা মারা যাচ্ছেন। 

সুপ্রিম কোর্ট পরিযায়ীদের খাদ্য ও যাতায়াতের জন্যে যেন কোনও টাকা না লাগে, সেটা নিশ্চিত করতে বলেছে। পরিযায়ী স্পেশাল ট্রেন নিয়ে নানান প্রশ্ন ইতিমধ্যেই উঠেছে। ৮০ জনের মৃত্যুর খবরটা নিয়ে যে বড় বিতর্ক হবে, তা বলাই বাহুল্য। 

 

বন্ধ করুন