বাড়ি > ঘরে বাইরে > ৯৮ বছর বয়েসে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই জিতলেন মুম্বইয়ের প্রাক্তন ফৌজি
আইএনএইচএস অশ্বিনী থেকে ছাড়া পাওয়ার সময় রামু লক্ষ্ণণ সকপালকে পুষ্পস্তবক উপহার দিয়ে বিদায় সম্বর্ধনা দেওয়া হয়।
আইএনএইচএস অশ্বিনী থেকে ছাড়া পাওয়ার সময় রামু লক্ষ্ণণ সকপালকে পুষ্পস্তবক উপহার দিয়ে বিদায় সম্বর্ধনা দেওয়া হয়।

৯৮ বছর বয়েসে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই জিতলেন মুম্বইয়ের প্রাক্তন ফৌজি

  • কোভিড সংক্রমণকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠলেন ভারতীয় সেনার অবসরপ্রাপ্ত সিপাই রামু লক্ষ্ণণ সকপাল (৯৮)।

বার্ধক্য থাবা বসাতে পারেনি তাঁর লড়াকু মেজাজে। ৯৮ বছর বয়সে কোভিড সংক্রমণকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠলেন ভারতীয় সেনার অবসরপ্রাপ্ত সিপাই রামু লক্ষ্ণণ সকপাল। 

কয়েক সপ্তাহ আগে করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে আশঙ্কাজনক পরিস্থিতিতে নৌবাহিনীর জাহাজি হাসপাতাল আইএনএইচএস অশ্বিনী-তে ভরতি করা হয়েছিল নভি মুম্বইয়ের নেরাল এলাকার বাসিন্দা সকপালেকে। ভারতীয় নৌসেনার তরফে জানানো হয়েছে, চিকিৎসায় তাঁর শারীরিক পরিস্থিতির ক্রমশ উন্নতি ঘটার ফলে শেষ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রাক্তন ফৌজি।

আইএনএইচএস অশ্বিনী থেকে ছাড়া পাওয়ার সময় তাঁকে পুষ্পস্তবক উপহার দিয়ে বিদায় সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। তবে শুধুমাত্র সকপালই নন, কিছু দিন আগে কর্নাটকের বেল্লারির বাসিন্দা শতায়ু হাল্লাম্মাও কোভিড সংক্রমণ থেকে সেরে উঠেছেন। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, ৬৫ বছরের বেশি বয়েসিদের জন্য করোনা সংক্রমণ অত্যন্ত বিপজ্জনক। 

বেল্লারির হাল্লাম্মা অবশ্য কোভিডকে একেবারেই পাত্তা দিতে নারাজ। সেরে উঠে তিনি বিবৃতি দিয়েছেন যে, বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী Covid-19 না কি হুবহু সাধারণ সর্দিকাশির মতো। নিয়মিত ওষুধ এবং রোজ একটি আপেল খেয়েই তাকে শায়েস্তা করেছেন বলে দাবি করেছেন অতিবৃদ্ধা। 

বন্ধ করুন