বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দিল্লিতে দূতাবাসের কাছে বিস্ফোরণ, ‘জঙ্গি হামলা’-র দাবি ইজরায়েলের, জারি সতর্কতা
এলাকা ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা বাহিনী। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
এলাকা ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা বাহিনী। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

দিল্লিতে দূতাবাসের কাছে বিস্ফোরণ, ‘জঙ্গি হামলা’-র দাবি ইজরায়েলের, জারি সতর্কতা

  • ইজরায়েলের এক আধিকারিককে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বিস্ফোরণের ঘটনাকে ‘সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ’ হিসেবে দেখছে ইজরায়েল।

‘বিটিং দ্য রিট্রিট’ অনুষ্ঠানের সময় নয়াদিল্লিতে ইজরায়েলের দূতাবাসের কাছে বিস্ফোরণ হল। তবে তা একেবারের মুদৃ বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ। ঘটনায় তিনটি গাড়ির কাঁচ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে কোনও হতাহতের খবর মেলেনি।

সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, আজ (শুক্রবার) বিকেল পাঁচটা পাঁচ মিনিট নাগাদ জিন্দল হাউসের বাইরে এপিজে আবদুল কালাম রোডে মুদৃ ইম্প্রোভাইসড একপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিস্ফোরণ হয়। জিন্দল হাউস থেকে কয়ের মিটার দূরত্বে অবস্থিত ইজরায়েলের দূতাবাস। ঘটনায় কোনও হতাহতের খবর মেলেনি। শুধুমাত্র তিনটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাড়িগুলির কাঁচ রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে আছে। ডিভাইডারের একটি অংশের ঘাসও উঠে এসেছে।

কন্ট্রোলে রুমে বিস্ফোরণের খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দিল্লি পুলিশ। আছেন ডেপুটি কমিশনার প্রমোদ কুশওয়াহা-সহ একাধিক উচ্চপদস্থ কর্তা। সূত্রের খবর, জিন্দল হাউসের ডিভাইডারের কাছে একটি ফুলের টবে আইইডি পাওয়া গিয়েছে। সম্ভবত চলন্ত গাড়ি থেকে সেটি ছোড়া হয়েছিল। তবে কীভাবে বিস্ফোরণ হয়েছে, তা পর্যালোচনা করতে এপিজে আবদুল কালাম রোডে সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখবে দিল্লি পুলিশ। নমুনা সংগ্রহ করতে ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছে দিল্লি পুলিশের ফরেন্সিক দল। গোটা এলাকা ঘিরে দেওয়া হয়েছে। এলাকায় প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সূত্রের খবর, ঘটনাস্থলে যাচ্ছে ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ড (এনসিজি) এবং জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালকেও সে বিষয়ে জানানো হয়েছে।

তবে ইজরায়েলের দূতাবাসের সামনে বিস্ফোরণের ঘটনা এই প্রথম নয়। ২০১২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি ইজরায়েলের এক কূটনীতিবিদের গাড়িতে বোমা রাখা হয়েছিল। তিনি সামান্য আহত হয়েছিলেন। সেই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হলেও আপাতত সে জামিনে মুক্ত আছে। তবে ‘বিটিং দ্য রিট্রিট’ অনুষ্ঠান চলাকালীন বিস্ফোরণের খবর পাওয়া যাওয়ায় শুক্রবারের ঘটনায় উদ্বেগ বেড়েছে। কারণ যেখানে বিস্ফোরণ হয়েছে, সেখানে মেরেকেটে দু'কিলোমিটার দূরে বিজয় চকে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী-সহ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্তাদের উপস্থিতিতে ‘বিটিং দ্য রিট্রিট’ অনুষ্ঠান চলছিল। সেজন্য কড়া নিরাপত্তারও বন্দোবস্ত ছিল।

নাম গোপন রাখার শর্তে দিল্লি পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, জঙ্গি হামলা নাকি এমনি কোনও বিস্ফোরণ, সেই সংক্রান্ত কোনও সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না। ঘটনার পিছনে সমাজবিরোধীদের হাত আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা গিয়েছে। তবে ভিভিআইপি এলাকায় বিস্ফোরণ হওয়ায় সমস্ত তদন্তকারী সংস্থা যৌথভাবে আসরে নেমেছে। তবে ইজরায়েলের এক আধিকারিককে উদ্ধৃত  করে সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বিস্ফোরণের ঘটনাকে ‘সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ’ হিসেবে দেখছে ইজরায়েল। তারইমধ্যে সিআইএসএফ জানিয়েছে, বিস্ফোরণের প্রেক্ষিতে সব বিমানবন্দর, গুরুত্বপূর্ণ জায়গা এবং সরকারি ভবনে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বাড়তি নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছে। 

বন্ধ করুন