বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোভিশিল্ড নিলেও 'অ্যান্টিবডি তৈরি হয়নি', সেরাম কর্তার বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ
সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান আদর পুনাওয়ালা (ফাইল ছবি, সৌজন্যে মিন্ট)
সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান আদর পুনাওয়ালা (ফাইল ছবি, সৌজন্যে মিন্ট)

কোভিশিল্ড নিলেও 'অ্যান্টিবডি তৈরি হয়নি', সেরাম কর্তার বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ

  • ওই ব্যক্তির দাবি, অ্যান্টিবডি বেড়ে যাওয়া তো দূরের কথা প্লেটলেটের সংখ্যা তিন লাখ থেকে কমে দেড় লাখ হয়ে গিয়েছে।

‌এবার সেরাম কর্তা আদর পুনাওয়ালা-সহ একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করলেন লখনউয়ের এক ব্যক্তি।ওই ব্যক্তির অভিযোগ, কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন নেওয়ার পরও দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে না।উল্টে প্লেটলেট কমে গিয়েছে।প্রথম ডোজ নেওয়ার পর থেকেই রীতিমতো অসুস্থ বোধ করেন তিনি।পুলিশ ব্যবস্থা না নিলে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়ে রেখেছেন ওই ব্যক্তি।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, লখনউয়ের বাসিন্দা ওই অভিযোগকারীর নাম প্রতাপ চন্দ্র। লখনউয়ের আশিয়ানা পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার কর্তা আদর পুনাওয়ালা ছাড়াও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের যুগ্মসচিব লভ আগরওয়াল, আইসিএমআরের ডিরেক্টর বলরাম ভার্গব, জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের ডিরেক্টর অপর্ণা উপাধ্যায়দের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগকারী ওই ব্যক্তি দাবি করেছেন, গত ৮এপ্রিল কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ নেন তিনি।প্রথম ডোজ নেওয়ার পরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।তিনি জানান, ‘আইসিএমআরের ডিরেক্টরের বক্তব্য অনুযায়ী, কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ নেওয়ার পর শরীরে অ্যান্টিবডির সংখ্যা বেড়ে যায় বলে দাবি করা হয়েছিল।সেই দাবির সত্যতা যাচাই করতেই সরকারের অনুমোদন প্রাপ্ত একটি ল্যাব থেকে অ্যান্টিবডির জিটি পরীক্ষা করাই।রিপোর্ট আসতেই দেখা যায়, অ্যান্টিবডি বেড়ে যাওয়া তো দূরের কথা প্লেটলেটের সংখ্যা তিন লাখ থেকে কমে দেড় লাখ হয়ে গিয়েছে।’ এর ফলে করোনায় আক্রান্তের সম্ভাবনা আরও বেড়ে গিয়েছে বলে দাবি তাঁর।

জানা গিয়েছে, পুলিশ ওই ব্যক্তির অভিযোগ গ্রহণ করলেও এখনও পর্যন্ত এফআইআর দায়ের করেনি।তবে বিষয়টি উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের জানানো হয়েছে।অভিযোগকারী স্পষ্ট জানিয়েছেন, পুলিশ যদি এফআইআর না দায়ের করেন, তাহলে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হতে বাধ্য হবেন।

বন্ধ করুন