বাড়ি > ঘরে বাইরে > ত্রিপুরায় শিক্ষিত বেকার প্রায় ২ লাখ, বলছে সরকারি পোর্টালের হিসেব
পোর্টালে রাজ্যের ১ লক্ষ ৯০ হাজার ২৭৮ জন বেকার নাম লিখিয়েছেন।
পোর্টালে রাজ্যের ১ লক্ষ ৯০ হাজার ২৭৮ জন বেকার নাম লিখিয়েছেন।

ত্রিপুরায় শিক্ষিত বেকার প্রায় ২ লাখ, বলছে সরকারি পোর্টালের হিসেব

  • স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাশ বেকারের সংখ্যা ৪০,৪৪৫ ও ১০,০৬৫।

ত্রিপুরায় নথিভুক্ত বেকার ১ লক্ষ ৯০ হাজার ২৭৮ জন। সাংবাদিক সম্মেলনে ত্রিপুরার শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ জানিয়েছেন, চলতি বছরের ৩১ মে পর্যন্ত ন্যাশনাল কেরিয়ার সার্ভিস (NCS) পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করা ব্যক্তিদের নিরিখেই এই হিসেব দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি পাওয়ার জন্য ২০১৬ সালে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জে নাম নথিভুক্ত করার পদ্ধতিতে বদল আনা হয়। 

আগে নাম নথিভুক্ত প্রক্রিয়াটি অফলাইনে হত। কার্ডের বৈধতা ছিল তিন বছর। তারপর কার্ডটি পুনর্নবীকরণ করতে হত। ২০১৬ সালে তৎকালীন শ্রমমন্ত্রী শহিদ চৌধুরী NCS পোর্টালের সূচনা করেন।

পোর্টাল চালু করার পর থেকে অনলাইনে নাম নথিভুক্ত শুরু হয়। তখন থেকে চলতি বছরের ৩১ মে পর্যন্ত পোর্টালে রাজ্যের ১ লক্ষ ৯০ হাজার ২৭৮ জন বেকার নাম লিখিয়েছেন।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, পোর্টালে দেওয়া তথ্য অনুসারে, রাজ্যে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত বেকার ৯,৭৩৭ জন, নবম শ্রেণি পর্যন্ত ১৮,০৭৪ জন, দশম শ্রেণি পর্যন্ত ৫৪,৩৮৩ জন, একাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ১,৬৫৯ ও দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা অর্জনকারী বেকারের সংখ্যা ৫০,৪৩৩ জন। স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাশ বেকারের সংখ্যা ৪০,৪৪৫ ও ১০,০৬৫।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ৩০৯৬টি নিয়মিত পদ তৈরি করা হয়েছে। এর মধ্যে বিভিন্ন দফতরে ৬৮৪টি পদে নিয়োগ করা হয়েছে। শিক্ষা দফতরে টেট, STGT ও STPGT পরীক্ষার মাধ্যমে ১৮২৭ জনকে নিয়োগ করা হয়েছে। এ ছাড়া চুক্তির ভিত্তিতে ও আউট সোর্সিং পদ্ধতিতেও বেশ কিছু পদে লোক নিয়োগ করা হয়েছে।

বন্ধ করুন