জাইল আনসারি ওরফে 'ডক্টর বম্ব'।
জাইল আনসারি ওরফে 'ডক্টর বম্ব'।

উধাও হলেও ‘ডক্টর বম্ব’-কে কানপুরে খুঁজে পেল পুলিশ

  • কানপুরের ফেথফুলগঞ্জে এক মসজিদের বাইরে ৬৮ বছর বয়েসি জালিস আনসারি ওরফে ডক্টর বম্বকে গ্রেফতার করে মুম্বই পুলিশের এটিএস ও উত্তরপ্রদেশ পুলিশের যৌথ দল।

অবশেষে ডক্টর বম্ব-এর নাগাল পেল পুলিশ। ‘নিখোঁজ’ হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কানপুর থেকে গ্রেফতার করা হল ১৯৯৩ সালের ট্রেন বিস্ফোরণকাণ্ডের মাথা কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদীকে।

শুক্রবার দুপুর একটা নাগাদ কানপুরের ফেথফুলগঞ্জে এক মসজিদের বাইরে ৬৮ বছর বয়েসি জালিস আনসারি ওরফে ডক্টর বম্বকে গ্রেফতার করে মুম্বই পুলিশের এটিএস ও উত্তরপ্রদেশ পুলিশের যৌথ দল। তাঁকে দ্রুত মুম্বই নিয়ে আসা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (এটিএস) বিনয় রাঠোর। তাঁর কাছ থেকে নগদ ৪৭,৭৮০ টাকা, প্যান ও আধার কার্ড উদ্ধার করেছে পুলিশ।

প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মুম্বইয়ের আর্থার রোড জেলের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত বন্দি আনসারি বাড়ি যাওয়ার পরে বৃহস্পতিবার সকালে আচমকা মুম্বইয়ের মোমিনপুরা অঞ্চলের ইত্তেহাদ হাউজিং সোসাইটির দোতলার ফ্ল্যাট থেকে বেপাত্তা হন।

মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘একমাস আগে আনসারিকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়। ১৭ জানুয়ারি সকাল এগারোটার মধ্যে তার জেলে ফিরে আসার কথা ছিল।’

বাবরি মসজিদ ধ্বংসের প্রতিহিংসা নিতে ১৯৯৩ সালের ৬ ডিসেম্বর মুম্বই ও হায়দরাবাদে বিভিন্ন ট্রেনে মোট ৪৩টি বিস্ফোরণের ছক কষেছিল জালিস আনসারি।

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার ভোর ৪.৩০ নাগাদ কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন আনসারি। সকাল সাতটাতেও বাড়ি না ফিরলে এবং তাঁর মোবাইল ফোন সুইচড অফ থাকায় থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন বন্দির ছেলে।

বন্ধ করুন