বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Assam Accident: দুর্ঘটনার কবলে মুখ্যমন্ত্রীর মায়ের গাড়ি, তাঁর ভাইও ছিলেন

Assam Accident: দুর্ঘটনার কবলে মুখ্যমন্ত্রীর মায়ের গাড়ি, তাঁর ভাইও ছিলেন

অসমের মরিগাঁওতে দুর্ঘটনার কবলে পড়ল অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার মায়ের গাড়ি। প্রতীকী ছবি

কোন পরিস্থিতিতে গাড়িটিকে এভাবে ধাক্কা দেওয়া হল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে আপাতত গাড়ির আরোহীরা নিরাপদেই রয়েছেন। ভাগ্যবশত তাঁরা দুজনেই অক্ষত রয়েছেন বলে খবর। পুলিশ আধিকারিকরা গিয়ে দ্রুত পরিস্থিতি মোকাবিলা করেন।

অসমের মরিগাঁওতে দুর্ঘটনার কবলে পড়ল অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার মায়ের গাড়ি। ৩৭ নম্বর জাতীয় সড়কে ওই গাড়িটি দুর্ঘটনার মুখে পড়ে। তবে দুর্ঘটনার জেরে কোন আহত হওয়ার খবর নেই।

মরিগাঁও জেলার জেলা পরিবহণ আধিকারিক সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর মা মৃণালিনী দেবী ও ভাই দিগন্ত বিশ্বশর্মা গুয়াহাটি থেকে দিফু যাচ্ছিলেন। কার্বি আলঙের দিফুর দিকে গাড়িটি যাচ্ছিল। সেখানে একটি অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন তাঁরা। সিলসাং এলাকায় একটি এসএউভি গাড়ি পেছন থেকে তাদের গাড়িতে ধাক্কা দেয়।এরপর জেলা পুলিশের আধিকারিকরা ফের তাঁদের গুয়াহাটি ফেরার জন্য অন্য গাড়ির ব্যবস্থা করেন।

এদিক ঘাতক গাড়়িটি ধাক্কা দিয়েই পালিয়ে গিয়েছে বলে খবর। তারপর থেকেই গাড়িটির খোঁজে তল্লাশি চলছে। চালকেরও খোঁজ চলছে। এদিকে মৃণালিনী দেবী অসম সাহিত্যসভার সহ সভাপতি। অন্য়দিকে মুখ্যমন্ত্রীর ভাই বই প্রকাশক। গুয়াহাটিতে তাঁর বইয়ের দোকান আছে।

তবে অনেকে মতে অল্পের জন্য তাঁরা দুজনেই রক্ষা পেয়েছেন। বড় দুর্ঘটনা হতে পারত।এদিকে ঘটনার পরেই গাড়ি নিয়ে চম্পট দেয় চালক। এলাকায় কোনও সিসি ক্যামেরা রয়েছে কি না তা খোঁজ করা হচ্ছে। দুর্ঘটনাটি ঠিক কীভাবে হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কোন পরিস্থিতিতে গাড়িটিকে এভাবে ধাক্কা দেওয়া হল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে আপাতত গাড়ির আরোহীরা নিরাপদেই রয়েছেন। ভাগ্যবশত তাঁরা দুজনেই অক্ষত রয়েছেন বলে খবর। পুলিশ আধিকারিকরা গিয়ে দ্রুত পরিস্থিতি মোকাবিলা করেন।

এদিকে পরিসংখ্যান বলছে, গত বছর জানুয়ারি থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত গুয়াহাটিতে সব মিলিয়ে ৬১৪টি দুর্ঘটনা হয়েছিল। গুয়াহাটিতেও একের পর এক দুর্ঘটনা হয়। অসমের বিভিন্ন জেলাতেও একের পর এক ভয়াবহ দুর্ঘটনা হয়েছিল। সব মিলিয়ে ১৯০জন প্রাণ হারিয়েছিলেন দুর্ঘটনায়। ৪১৫জন বাসিন্দা জখম হয়েছিলেন একের পর এক দুর্ঘটনায়। দুর্ঘটনা রোধে নানা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পথ নিরাপত্তা নিয়েও নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপরেও উদ্বেগ কমেনি এখনও।

 

বন্ধ করুন