বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ ছড়ানোর উপসর্গ কী কী? জানালেন এইমসের শীর্ষ চিকিৎসক
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই (PTI)
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই (PTI)

ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ ছড়ানোর উপসর্গ কী কী? জানালেন এইমসের শীর্ষ চিকিৎসক

  • মিউকোরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী ঘোষণা করেছে বিহার, তামিলনাড়ু, গুজরাত, ওড়িশা ও চণ্ডীগড় সহ আরও বেশ কয়েকটি রাজ্য।

গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী ঘোষিত করার অনুরোধ আসে রাজ্যগুলির কাছে৷ এরপর মিউকোরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী ঘোষণা করে বিহার, রাজস্থান সহ একাধিক রাজ্য। কেন্দ্রের অনুরোধে সাড়া দিয়ে তামিলনাড়ু, গুজরাত, ওড়িশা ও চণ্ডীগড় ব্ল্যাক ফাংগাসকে মহামারী ঘোষিত করে।

এই আবহে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস কী কারণে হতে পারে, তা নিয়ে স্পষ্ট ধারণা দিলেন দিল্লির এইমস হাসপাতালের শীর্ষ নিউরোসার্জেন ডঃ পি শরৎ চন্দ্র৷ এদিন তিনি জানান, ডায়াবিটিজ থাকা কোভিড রোগীদের চিকিৎসায় স্টেরয়েড ব্যবহার করা হলে ও তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হলে, তাঁর শরীরে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ ছড়ানোর ঝুঁকি প্রবল৷ কোভিড রোগীদের চিকিৎসার ষষ্ঠ সপ্তাহে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি বলে তিনি জানিয়েছেন৷

তিনি আরও বলেন, 'ব্ল্যাক ফাংগাস হওয়ার কারণগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবিটিজ, চিকিৎসায় স্টেরয়েডের ব্যবহার, ভেন্টিলেশনে থাকা এবং বিকল্প অক্সিজেন নেওয়া৷ সিলিন্ডার থেকে সরাসরি ঠান্ডা অক্সিজেন দেওয়াটা খুবই মারাত্মক৷ ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ রুখতে রোগীকে অ্যান্টি ফাঙ্গাল ওষুধ পোসাকোনাজোল দেওয়া যেতে পারে৷'

টানা মাস্ক পরে থাকা থেকেও বিরত থাকতে বলে তিনি বলেছেন, 'দীর্ঘ সময় মাস্কের ব্যবহার ঠিক না, কারণ কাপড়ের মাস্ক টানা কোথাও পড়ে থাকলে তাতে ছত্রাকের সংক্রমণ দেখা দিতে পারে৷ কাপড়ে মাস্ক রোজ ধোয়া প্রয়োজন এবং এন৯৫ মাস্ক পাঁচবার ব্যবহারের পর বাতিল করে দেওয়া উচিত৷' মিউকোরমাইকোসিসকে মহামারী রোগ আইনের আওতায় নোটিফায়েবল রোগের তকমা দিয়েছে রাজস্থান, গুজরাত, পঞ্জাব, হরিয়ানা, কর্নাটক, ওড়িশা, তেলাঙ্গানা ও তামিলনাড়ু৷

বন্ধ করুন