বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সিবিআই-ইডির চার্জশিট বিবেচনার পর চিদম্বরম ও তাঁর ছেলেকে তলব দিল্লির আদালতের
কংগ্রেস সাংসদ পি চিদম্বরম (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)
কংগ্রেস সাংসদ পি চিদম্বরম (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)

সিবিআই-ইডির চার্জশিট বিবেচনার পর চিদম্বরম ও তাঁর ছেলেকে তলব দিল্লির আদালতের

  • এয়ারসেল ম্যাক্সিস মামলায় পি চিদম্বরম ও তাঁর ছেলে কার্তিকে তলব করল দিল্লির আদালত।

এয়ারসেল-ম্যাক্সিস কাণ্ডে দুর্নীতি এবং অর্থপাচার মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদম্বরম ও তাঁর ছেলে কার্তি চিদাম্বরমকে তলব করল দিল্লির একটি আদালত। এয়ারসেল ম্যাক্সিস মামলায় সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই) এবং এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) জমা দেওয়া চার্জশিটগুলি বিবেচনা করার পরে দিল্লির একটি আদালত শনিবার রাজ্যসভার সাংসদ এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদম্বরম এবং তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরম এবং অন্যান্যদের তলব করেছে। রাউজ অ্যাভিনিউ আদালতের বিশেষ বিচারক এমকে নাগপাল সোমবার এই মামলায় তাঁর রায় সংরক্ষণ করেছিলেন।

অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল সঞ্জয় জৈন তদন্তকারী সংস্থাগুলির পক্ষে উপস্থিত হয়ে আগে আদালতকে জানিয়েছিলেন যে এজেন্সিগুলি বিভিন্ন দেশে লেটার রোগেটরি পাঠিয়েছে এবং সেই বিষয়ে কিছু তথ্য উঠে এসেছে। সিবিআইও তদন্তে নতুন তথ্য উঠে আসার বিষয়ে বলে আদালতে। এজেন্সিগুলির কাছ থেকে এই সংক্রান্ত রিপোর্ট চাওয়ার সময় আদালত বলেছিল যে অভিযোগপত্রে উল্লিখিত অভিযোগগুলি 'বেশ গুরুতর' বলে মনে হচ্ছে।

এয়ারসেল-ম্যাক্সিস চুক্তিতে বিদেশী বিনিয়োগ প্রচার বোর্ডের (এফআইপিবি) অনুমোদন দেওয়ার ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল। এই মামলাটির তদন্তের দায়িত্বে আছে সিবিআই এবং ইডি। ২০০৬ সালে যখন চিদাম্বরম কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ছিলেন তখন এফআইপিবির অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল এয়ারসেল-ম্যাক্সিস চুক্তির ক্ষেত্রে। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ সেপ্টেম্বর চিদম্বরমকে গ্রেফতার করা হয়। ১০৫ দিন জেলে কাটানোর পর জামিন পান তিনি। তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরমকেও আগে গ্রেফতার করা হয়েছিল। বর্তমানে তিনিও জামিনে আছেন।

 

বন্ধ করুন