বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আলিবাবা এত শেয়ার বেচে দেবে জানতাম না, স্বীকারোক্তি Paytm শীর্ষকর্তার

আলিবাবা এত শেয়ার বেচে দেবে জানতাম না, স্বীকারোক্তি Paytm শীর্ষকর্তার

দুই কর্তা। ফাইল ছবি: এএনআই (ANI)

Paytm-এর নিজেদের ভাগের বিপুল শেয়ার বেচে দিয়েছে চিনের আলিবাবা গোষ্ঠী। ঘরে তুলে নিয়েছে প্রায় ১২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই ঘটনায় বেশ চটেছেন সংস্থার ক্ষুদ্র, খুচরা বিনিয়োগকারীরা। এমনিতেই Paytm-এর শেয়ারের হাঁড়ির হাল। তার উপর বড় বিনিয়োগকারী এত বেশি শেয়ার বেচে কেটে পড়ছে। ফলে রাগ হওয়াটাই স্বাভাবিক।

Alibaba কোনওদিনই Paytm-এর স্ট্র্যাটেজিক শেয়ারহোল্ডার ছিল না। ১৭ জানুয়ারি এমনই জানালেন পেটিএম-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং CEO । সম্প্রতি লোকসানে ডুবে থাকা Paytm-এর নিজেদের ভাগের বিপুল শেয়ার বেচে দিয়েছে চিনের আলিবাবা গোষ্ঠী। ঘরে তুলে নিয়েছে প্রায় ১২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই ঘটনায় বেশ চটেছেন সংস্থার ক্ষুদ্র, খুচরা বিনিয়োগকারীরা। এমনিতেই Paytm-এর শেয়ারের হাঁড়ির হাল। তার উপর বড় বিনিয়োগকারী এত বেশি শেয়ার বেচে কেটে পড়ছে। ফলে রাগ হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আলিবাবা সাধারণ বিনিয়োগকারীই ছিল বলে জানিয়েছেন পেটিএম-এর কর্তা। ফলে কার্যত এতে তাদের কিছু করার ছিল না। আরও পড়ুন: PayTM: গত ১০ বছরে ‘বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ IPO’ পেটিএম, এক বছরে দাম কমেছে ৭৫%

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম চলাকালীন CNBC TV18-র সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বিজয়শেখর শর্মা। তিনি দাবি করেন, তাঁর সংস্থাই নাকি এই বিষয়ে জানত না। তাদের কাছে খবরই ছিল না যে আলিবাবা এত বেশি শেয়ার একসঙ্গে বেচে দেবে। 'সেটা জানলে যথাযছ ব্যবস্থা নেওয়া হত,' বললেন পেটিএম কর্তা।  

স্ট্র্যাটেজিক শেয়ারহোল্ডার মানে কী? 

সহজ ভাষায় বললে, এই জাতীয় বিনিয়োগকারীরা শুধু টাকা দিয়েই ক্ষান্ত হন না। তাঁরা সংস্থার ব্যবসায়িক সিদ্ধান্তের সঙ্গেও জড়িত থাকেন। ফলে সংস্থার ওঠানামার দিতে তাঁদের নজর রাখতে হয়। এদিকে একজন সাধারণ আর্থিক বিনিয়োগকারীর তেমন কোনও দায়-দায়িত্ব নেই। তিনি শুধুমাত্র রিটার্নের আশাতেই খেলেন। পরিস্থিতি বুঝে তিনি শেয়ার বেচে দিতেই পারেন।

মজার বিষয় হল, ২০১৫ সালে Paytm-এর বৃহত্তম শেয়ারহোল্ডারই ছিল আলিবাবা এবং তার অধিনস্থ অ্যান্ট ফাইন্যান্সিয়াল। সংস্থার ৪৪ শতাংশের বেশি ইক্যুইটি শেয়ার ছিল তাদের কাছে। বদলে দিয়েছিল ৬৮০ মার্কিন ডলার। সেই বিনিয়োগের ফলে পেটিএম-এর ভ্যালুয়েশন এক লাফে অনেকটা বেড়ে গিয়েছিল। এরপর অনেক জল গড়িয়েছে। পেটিএম-এর আইপিও এবং সাম্প্রতিক শেয়ার বিক্রির পরে বেশ কিছু টাকা ঘরে তুলেছে আলিবাবা। তবে এখনও তারা Paytm-এর প্রায় ২৮ শতাংশের মালিক।

গত ২০২১ সালের নভেম্বরে Paytm-এর IPO হয়। সেই সময় থেকে সংস্থার শেয়ার দর প্রায় ৭৫% হ্রাস পেয়েছে। মুনাফার অভাব, ভবিষ্যত বৃদ্ধি নিয়ে অস্পষ্টতা ইত্যাদি কারণে ক্রমেই সংস্থার শেয়ার ছেড়ে দিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। অনেকে এই পতনের জন্য অতিরিক্ত ভ্যালুয়েশনকেও দায়ী করেছেন। আরও পড়ুন: শেয়ার চাঙ্গা করতে ৮৫০ কোটি দিয়ে নিজেদের শেয়ার নিজেরাই কিনছে পেটিএম

<p>ফাইল ছবি: গুগল ফাইন্যান্স</p>

ফাইল ছবি: গুগল ফাইন্যান্স

(Google Finance)

১০ নভেম্বর ২০২১-এ Paytm-এর শেয়ার দর ছিল ১,৫৬০ টাকার স্তরে। সেই শেয়ারই বুধবার কমে ৫৩৩ টাকায় দাঁড়িয়েছে। ভারত তথা সমগ্র বিশ্বের শেয়ার বাজারের ইতিহাসে এটি সবচেয়ে বড় পতন। অন্তত নামী সংস্থার IPO-র সাপেক্ষে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

বন্ধ করুন