বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > একজনও পাস করতে পারেননি, ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সবাই ফেল
বাংলাদেশের এসএসসিতে পাসের হার বাড়লেও ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করতে পারেননি (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য বচ্চন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)
বাংলাদেশের এসএসসিতে পাসের হার বাড়লেও ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করতে পারেননি (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য বচ্চন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)

একজনও পাস করতে পারেননি, ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সবাই ফেল

  • করোনা আতিমারির জেরে এবার নির্ধারিত সময়ের ৮ মাস পরে পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। ১৪ নভেম্বর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট( এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে সেই পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে দেখা যাচ্ছে ৫ হাজার ৪৯৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাসের হার একশ শতাংশ। তবে বাংলাদেশের তাৎপর্যপূর্ণভাবে ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোনও পরীক্ষার্থীই পাস করতে পারেননি। আর পাইকারি হারে এভাবে অকৃতকার্য হওয়ার ঘটনাকে ঘিরে শোরগোল পড়েছে বাংলাদেশের শিক্ষা মহলে। 

এদিকে গতবারের তুলনায় পাসের হার এবার কিছুটা বেড়েছে। গতবার পাসের হার ছিল ৮২.৮৭ শতাংশ। আর এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার দাঁড়িয়েছে ৯৩.৫৮ শতাংশ। সেই নিরিখে পাসের হার এবার আশানুরূপ হয়েছে। কিন্তু ১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফলাফল দেখে মাথায় হাত পড়ে গিয়েছে অনেকের। 

এদিকে করোনা আতিমারির জেরে এবার নির্ধারিত সময়ের ৮ মাস পরে পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। ১৪ নভেম্বর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়। শেষ হয়েছিল ২৩শে নভেম্বর। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ২২ লাখ। তবে গতবারের তুলনায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কিছুটা বেশি ছিল। তবে এবার সামগ্রিক পরিস্থিতিতে সব বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরীক্ষার সময় ও নম্বরও কমিয়ে দেওয়া হয়েছিল। শুধু গ্রুপ ভিত্তিক বিষয় যেমন বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা ইত্যাদি বিষয়ের উপর পরীক্ষা হয়। বাকি বিষয়গুলিতে অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে নম্বর দেওয়া হয়েছে।  

 

বন্ধ করুন