বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ২০ টাকার বিনিময়ে শিশুর সঙ্গে ওরাল সেক্স, 'অপরাধ কম গুরুতর',বলল এলাহাবাদ হাইকোর্ট
এলাহাবাদ হাইকোর্টের আজব পর্যবেক্ষণ। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)
এলাহাবাদ হাইকোর্টের আজব পর্যবেক্ষণ। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)

২০ টাকার বিনিময়ে শিশুর সঙ্গে ওরাল সেক্স, 'অপরাধ কম গুরুতর',বলল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

  • এক ব্যক্তি ২০ টাকার বিনিময়ে একটি শিশুর সঙ্গে ওরাল সেক্স করে। এই অপরাধের জন্য নিম্ন আদালতে তার ১০ বছরের সাজা হয়। তবে উচ্চ আদালত সেই সাজার সময়সীমা কমিয়ে ৭ বছর করে দেয়।

শিশুদের সঙ্গে ওরাল সেক্সের অপরাধ কম গুরুতর। এমনই পর্যবেক্ষণ দিয়ে সবাইকে অবাক করে দিল এলাহাবাদ হাই কোর্ট। শুধু তাই নয়, যেই মামলার প্রেক্ষিতে উচ্চ আদালতের এই পর্যবেক্ষণ, সেই মামলার অপরাধীর সাজাও কমিয়ে দিয়েছে উচ্চ আদালত। জানা গিয়েছে, সনু কুশওয়াহা নামক এক ব্যক্তি ২০ টাকার বিনিময়ে একটি শিশুর সঙ্গে ওরাল সেক্স করে। এই অপরাধের জন্য নিম্ন আদালতে তার ১০ বছরের সাজা হয়। তবে উচ্চ আদালত সেই সাজার সময়সীমা কমিয়ে ৭ বছর করে দেয়।

এলাহাবাদ হাই কোর্টের বিতারক অনিল কুমার ঝায়ের সিঙ্গল বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। তিনি এই মামলার প্রেক্ষিতে পর্যবেক্ষণ দেন যে শিশুর সঙ্গে ওরাল সেক্স 'কম গুরুতর' অপরাধ। এর আগে বিশেষ দায়রা আদালত এই অপরাধের জন্য সনুকে ১০ বছরের কারাণদণ্ডের সাজা শোনায়। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সনু উচ্চ আদালতে আবেদন জানান। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা এবং ৫০৬ ধারা এবং পকসো আইনের ৪ নম্বর ধারার অধীনে মামলা রুজু হয়েছিল সনুর বিরুদ্ধে।

উচ্চ আদালতের অবশ্য বক্তব্য, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা এবং ৫০৬ ধারায় দোষী নয় সনু। বরং সে পকসো আইনের ৪ নম্বর ধারায় দোষী। এর ফলে ১০ বছরের বদলে ৭ বছরের সাজা এবং ৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে বলা হয় দোষী সনুকে। তবে উচ্চ আদালতের সিঙ্গল বেঞ্চের এই পর্যবেক্ষণে অনেকেই অবাক হয়েছে।

 

বন্ধ করুন