বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মাদ্রাসার শৌচাগারে নিয়ে গিয়ে পর পর 'ধর্ষণ' ছাত্রকে, গ্রেফতার শিক্ষক
ছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগ মাদ্রাসার শিক্ষকের বিরুদ্ধে  ‌ছবিটি প্রতীকী (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌
ছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগ মাদ্রাসার শিক্ষকের বিরুদ্ধে  ‌ছবিটি প্রতীকী (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌

মাদ্রাসার শৌচাগারে নিয়ে গিয়ে পর পর 'ধর্ষণ' ছাত্রকে, গ্রেফতার শিক্ষক

  • Rapid Action battalion বা RAB এর তৎপরতায় ওই শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত শিক্ষকের বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায়।

১০ বছর বয়সী ছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। গত ১৫ই অগস্ট সকালে বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের ওই মাদ্রাসার তিনতলার শৌচাগারে ছাত্রটিকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এই ঘটনার অভিযুক্ত শিক্ষক বেলাল হোসেন ওরফে বিল্লালকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বিশ্বনাথপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। Rapid Action battalion বা RAB এর তৎপরতায় ওই শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত শিক্ষকের বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায়। 

 

সূত্রের খবর, বছর পাঁচেক আগে ওই ছাত্রটি মাদ্রাসায় ভরতি হয়েছিল। গত ১৫ই অগস্ট সকালে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। এরপর গত ২৭অগস্ট ফের তাকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। শৌচাগারে নিয়ে গিয়ে ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। এদিকে ঘটনার পরই বাড়ি চলে যায় ওই ছাত্রটি। পরে ছাত্রের বাবাকে ফোন করে ছাত্রটিকে মাদ্রাসায় ফিরে আসার জন্য অধ্যক্ষ অনুরোধ করেন। কিন্তু মাদ্রাসায় যাওয়ার কথা শুনলেই কান্নাকাটি করছিল ছাত্রটি। পরে সে পরিবারের কাছে গোটা ঘটনা খুলে বলে। এরপরই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিত ছাত্রের পরিবার। কিন্তু গোটা ঘটনায় একাধিক প্রশ্ন উঠেছে। যে শিক্ষকের কাছে সুরক্ষিত থাকবে বলে সন্তানকে মাদ্রাসায় পাঠিয়েছিলেন অভিভাবকরা, সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধেই উঠেছে ধর্ষণের অভিযোগ। তবে কী শিক্ষাক্ষেত্রেও সুরক্ষিত নয় শিশুরা?

 

বন্ধ করুন