বাড়ি > ঘরে বাইরে > মহাপ্রস্থানের আগে বচ্চনের সঙ্গে বিরোধ মেটানোর চেষ্টা করেন অমর সিং
মৃত্যুর আগে অমিতাভ বচ্চন ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে নষ্ট হয়ে যাওয়া সম্পর্ক মেরামতির চেষ্টা করেছিলেন অমর সিং।
মৃত্যুর আগে অমিতাভ বচ্চন ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে নষ্ট হয়ে যাওয়া সম্পর্ক মেরামতির চেষ্টা করেছিলেন অমর সিং।

মহাপ্রস্থানের আগে বচ্চনের সঙ্গে বিরোধ মেটানোর চেষ্টা করেন অমর সিং

  • বাবার মৃত্যুবার্ষিকীতে অমিতাভের বার্তা পেয়ে আপ্লুত অমর সিং অমিতাভ ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক মেরামত করতে চেয়েছিলেন।

মৃত্যুর কয়েক মাস আগে বলিউড শাহেনশা অমিতাভ বচ্চন ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে নষ্ট হয়ে যাওয়া সম্পর্ক মেরামতির চেষ্টা করেছিলেন রাজ্য সভার সাংসদ অমর সিং। 

গত ফেব্রুয়ারি মাসে হংকংয়ে কিডনির সমস্যার চিকিৎসা করাতে গিয়ে অমর সিং টুইট করে জানান, তাঁর বাবার মৃত্যুবার্ষিকীতে অমিতাভের বার্তা পেয়ে তিনি আপ্লুত হয়েছেন। সেই সঙ্গে অতীতে অমিতাভ এবং বচ্চন পরিবার সম্পর্কে নিজের অতিরিক্ত আবেগতাড়িত আচরণের জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশও করেন।

সেই সময়ই তিনি জানিয়েছিলেন যে, কিডনিজনিত সমস্যায় তিনি মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। 

একদা ঘনিষ্ঠ বন্ধু অমর সিং ও অমিতাভ বচ্চনের মধ্যে বিভেদের আঁচ পাওয়া যায় প্রথম এক পত্রিকায় প্রকাশিত বর্ষীয়ান রাজনীতিকের সাক্ষাৎকারে। ওই সাক্ষাৎকারে অমর দজাবি করেন যে, বচ্চন পরিবারের সঙ্গে পরিচয়ের আগে থেকেই অমিতাভ ও জয়া বচ্চন আলাদা বসবাস করতেন। 

তিনি বলেন, জনসমক্ষে একত্রে থাকলেও আদতে স্ত্রীর সঙ্গে প্রায় সম্পর্কই নেই অমিতাভের। পাশাপাশি, পুত্রবধূ ঐশ্বর্যা রাইকে নিয়েও বচ্চপন পরিবারে তীব্র অশান্তি ছড়ায় বলেও সাক্ষাৎকারে দাবি করেন রাজনীতিবিদ।

শুধু তাই নয়, সমাজবাদী পার্টিতে স্ত্রী জয়া বচ্চন যোগ দেওয়ার প্রাক্কালে তাঁকে দলে না নেওয়ার জন্য অমিতাভ অনুরোধ করেছিলেন বলেও জানান অমর সিং। 

এরও আগে, তিহার জেলে বন্দি থাকা অবস্থায় তাঁর সঙ্গে দেখা না করে নিজের ভাবমূর্তি রক্ষা করেছিলেন বলে অমিতাভর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন অমর সিং। জামিনে মুক্ত হওয়ার পরে হাসপাতালে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে এলে তিনি বিগ বি-এর সঙ্গে অত্যন্ত শীতল ব্যবহার করেন বলে নিজেই জানিয়েছিলেন সপা নেতা।

অমর সিংয়ের নানান বিতর্কিত মন্তব্য নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে রাজি হননি অমিতাভ। তবে তার আগে থেকেই বচ্চন পরিবারের সঙ্গে অমর সিংয়ের সম্পর্কের অবসান ঘটে। একদা যে অমিতাভকে আর্থিক দুরবস্থা থেকে রক্ষা করেছিলেন, পরে তাঁর সঙ্গেই আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্ক তৈরি হয় অমরের। 

জীবন সায়াহ্নে পৌঁছে প্রাক্তন বন্ধু ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে যাবতীয় বিরোধ মিটিয়ে ফেলার শেষ চেষ্টা করেছিলেন অমর সিং। কিন্তু তাতে যে বিশেষ উৎসাহ দেখাননি জলসার মালিক, তা স্পষ্ট। যদিও শনিবার তাঁর মৃত্যুসংবাদ  পাওয়ার পরে নতমস্তক ছবি টুইট করে প্রাক্তন বন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা ও শোক প্রকাশ করেছেন অমিতাভ। 

জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন বন্ধুত্বের অভিমান বুকে বয়েই চিরবিদায় নিলেন কেন্দ্রীয় রাজনীতির চালচিত্রে একদা উজ্জ্বল নক্ষত্র অমর সিং।

বন্ধ করুন