বুধবার পূর্ব মেদিনীপুরে গাঁটছড়া বাঁধলেন জিয়াকি ও পিন্টু।
বুধবার পূর্ব মেদিনীপুরে গাঁটছড়া বাঁধলেন জিয়াকি ও পিন্টু।

করোনা-আতঙ্কের মাঝেই মেদিনীপুরে বিয়ে সারলেন চিনা যুবতী

ভয়ংকর করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে চিন ও ভারতের মধ্যে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় মেয়ের বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারলেন না চিনা যুবতী বি জিয়াকির বাবা ও মা।

নোভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের আতঙ্কের মাঝেই ভারতীয় প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে সেরে ফেললেন চিনের নাগরিক এক যুবতী। বুধবার পূর্ব মেদিনীপুরের সেই অনুষ্ঠানে অবশ্য থাকতে পারেননি তাঁর বাবা-মা।

ভয়ংকর করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে চিন ও ভারতের মধ্যে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় মেয়ের বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারলেন না চিনা যুবতী বি জিয়াকির বাবা ও মা। তাঁদের ছাড়াই অবশ্য পূর্ব মেদিনীপুরের বাসিন্দা পিন্টু জানার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে ফেলেছেন জিয়াকি। বিয়ের অনুষ্ঠান পিন্টুর বাড়িতেই হয়েছিল।

সাত বছর আগে এক ব্যবসায়িক চুক্তি উপলক্ষে চিনে গিয়ে জিয়াকির সঙ্গে পরিচয় হয় পিন্টু জানার। ক্রমে সেই আলাপ পরিণত হয় প্রেমে। শেষ পর্যন্ত পাত্র-পাত্রীর ইচ্ছায় শামিল হন দুই পরিবারের সদস্যরাও।


আরও পড়ুন: করোনাভাইরাসের উপসর্গ কী কী ? অসুখই বা কীভাবে রুখবেন? হেল্পলাইন চালু কেন্দ্রের



বিয়ের পরে সংবাদসংস্থা এএনআই-কে জিয়াকি জানান, ‘আমার বাবা-মা ভলো আছেন। তাঁরা খুব খুশি। তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে ভারত ও চিনের মধ্যে বিমান পরিষেবা বন্ধ থাকায় তাঁরা বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারেননি।’

ভাইরাসের প্রকোপ কমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তাঁরা চিনে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন জিয়াকি।


আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মাঝে ভালোবাসার জয়,মধ্যপ্রদেশে চিনের পাত্রীকে বিয়ে করলেন ভারতী


পাত্র পিন্টু জানা জানিয়েছেন, ‘আমরা এখানেই বিয়ে সারতে চেয়েছিলাম। করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে ওর পরিবার ভারতে আসতে পারেননি। পরে আমরা চিনে আরও একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করব।’

চিনা মেয়ের সঙ্গে গর করার অভিজ্ঞতা কেমন হতে চলেছে পিন্টুর? হেসে ফেলে তিনি জানান, ‘আমাদের বিয়ে হল চিন ও বাংলার সংস্কৃতির মেলবন্ধনের প্রতীক।’



বন্ধ করুন