বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোন 'জ্যাম' খাবেন ভোটাররা? অখিলেশ না যোগীর? উত্তরপ্রদেশে 'মার্কেটিংয়ে' শাহ
অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (ANI)
অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (ANI)

কোন 'জ্যাম' খাবেন ভোটাররা? অখিলেশ না যোগীর? উত্তরপ্রদেশে 'মার্কেটিংয়ে' শাহ

  • সমাজবাদী পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিত আজমগড়ে দাঁড়িয়েই অখিলেশ যাদবকে আক্রমণ শানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

অখিলেশের 'জ্যাম' বনাম যোগীর 'জ্যাম', উত্তরপ্রদেশের ভোটারদের সামনে বিকল্প তুলে ধরলেন অমিত শাহ। শনিবার সমাজবাদী পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিত আজমগড়ে দাঁড়িয়েই অখিলেশ যাদবকে আক্রমণ শানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আসন্ন উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের আগে জনসাধারণকে অখিলেশের 'জ্যাম' ও যোগী আদিত্যনাথের 'জ্যামে'র মধ্যে একটিকে বেছে নেওয়ার কথা বলেন।

'জ্যাম' বা 'JAM'-এর সংক্ষিপ্ত রূপটি ব্যাখ্যা করে শাহ বলেন, 'অখিলেশের জ্যামের সাথে মাঠে নেমেছেন যার অর্থ জিন্নাহ (মুহাম্মদ আলি জিন্নাহ, পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা), আজম খান (এসপি সদস্য) এবং মুখতার (কারাবন্দি থাকা মাফিয়া ডন তথা এমএলএ মুখতার আনসারি)। সেখানে যোগীজির 'জ্যাম' মানে জন ধন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, আধার কার্ড এবং মোবাইল সবার জন্য দুর্নীতিকে মূল থেকে নির্মূল করতে। এখন, জনগণকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে তারা কোন জাম পছন্দ করবেন তাঁরা।'

শাহ প্রকাশ্যে যোগীর নেতৃত্বকে সমর্থন করেন এবং ভোটের পরে তাঁকে পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে তুলে ধরেন। শাহ বলেন, 'আমি আপনাকে আজমগড়ের সমস্ত বিধানসভা আসনে বিজেপিকে জয়যুক্ত করার জন্য আবেদন জানাচ্ছি যাতে যোগীকে আবার মুখ্যমন্ত্রী করা যায়।'

রাজা সুহেলদেবের নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তপ্রস্তর স্থআপন করে শাহ বলেন, 'যে জায়গাটি গত কয়েক বছর ধরে চরমপন্থীদের কেন্দ্র এবং সন্ত্রাসী মডিউলের আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছিল, সেটি এখন দেবী সরস্বতীর স্থানে রূপান্তরিত হতে চলেছে। আজমগড়ের পরিবর্তনের যুগ শুরু হয়েছে, যেটি দেশবিরোধী কার্যকলাপের ‘আড্ডা’তে পরিণত হয়েছিল।'

বন্ধ করুন