বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'অখিলেশকে জিজ্ঞাসা করুন করসেবকদের গুলি করার কী প্রয়োজন ছিল?' অযোধ্যায় শাহ-বার্তা
অযোধ্যায় অমিত শাহ। ছবি সৌজন্যে এএনআই।

'অখিলেশকে জিজ্ঞাসা করুন করসেবকদের গুলি করার কী প্রয়োজন ছিল?' অযোধ্যায় শাহ-বার্তা

  • অযোধ্যা বিমানবন্দর থেকে অযোধ্যা রেলস্টেশন প্রকল্পের প্রসঙ্গ তুলে অমিত শাহ ঘোষণা করেন যে, অযোধ্যার বুকে একটি বিশ্ববিদ্যালয় হবে যার নাম শ্রীরামচন্দ্রের নামে নামাঙ্কিত হবে।

হাইভোল্টেজ উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে রীতিমতো তপ্ত গোবলয়ের রাজনীতি। প্রতিটি রাজনৈতিক শিবিরই নিজের মতো করে এই নির্বাচন ঘিরে ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে। এদিকে, বৃহস্পতিবার থেকেই একের পর এক জনসভায় বিজেপির ভোট প্রচারে পারদ তুঙ্গে রেখেছেন অমিত শাহ। এদিন বিজেপির 'চাণক্য' পা রাখেন উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায়। সেখানে এক সভা থেকে করসেবকদের প্রসঙ্গ তুলে সরাসরি সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ যাদবকে নিশানা করেন অমিত শাহ।

উত্তরপ্রদেশের জিআইসি গ্রাউন্ডে এদিন এক সভা থেকে কার্যত বিরোধীদের পর পর টার্গেটে রাখেন অমিত শাহ। অযোধ্যার মাটিতে পা রেখেই রাম মন্দির প্রসঙ্গে একাধিক বক্তব্য রাখেন অমিত শাহ। তিনি বলেন,'বহু যুগ ধরে মানুষ আত্মত্যাগ করে আসছেন রাম মন্দিরের জন্য। কিন্তু মন্দির তৈরি হয়নি।'একই সঙ্গে তিনি বলেন, 'এখন দুর্দান্ত রামমন্দির তৈরি হয়ে গিয়েছে রামজন্মভূমিতে।'এরপরই বিরোধী অখিলেশ শিবিরকে টার্গেট করে তিনি বলেন,'আগে উত্তরপ্রদেশে মাফিয়া রাজ ছিল। আর এখন চারপাশ পুলিশে ঘেরা।' সেই সুর ধরেই উপস্থিত জনতাকে উদ্দেশ্য করে অমিত শাহের প্রশ্ন, 'অখিলেশকে জিজ্ঞাসা করবেন, করসেবকদের উপর গুলি চালানোর কী প্রয়োজন ছিল?' উল্লেখ্য, এক্ষেত্রে উত্তরপ্রদেশের বুকে কয়েক বছর আগের এক উত্তাল অধ্যায়ের প্রেক্ষাপটকে স্মরণ করিয়ে দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। পাশাপাশি এদিন বিজেপির চাণক্যের কণ্ঠে উঠে আসে যোগী সরকারের প্রশংসা। কীভাবে উত্তরপ্রদেশের বুকে যোগী আদিত্যনাথের সরকার একের পর এক উন্নয়নমূলক কাজ করছে তার খতিয়ান দেন অমিত শাহ।

অযোধ্যা বিমানবন্দর থেকে অযোধ্যা রেলস্টেশন প্রকল্পের প্রসঙ্গ তুলে অমিত শাহ ঘোষণা করেন যে, অযোধ্যার বুকে একটি বিশ্ববিদ্যালয় হবে যার নাম শ্রীরামচন্দ্রের নামে নামাঙ্কিত হবে। এদিন অখিলেশকে টার্গেট করার পাশাপাশি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও নিশানায় রাখেন অমিত শাহ। তিনি বলেন, 'যখন মোদী সরকার কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা অবলুপ্ত করে তখন সমস্ত বিরোধীদল .. কংগ্রেস, কমিউনিস্ট আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধিতা করেছিলেন।' এরই সঙ্গে রাহুল গান্ধীকে টার্গেট করে অমিত শাহ বলেন, কংগ্রেস নেতা সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রমাণ চেয়েছিলেন। এরপরই ভোট প্রচারের সুর চড়া করে অমিত শাহ বলেন,'তিনবার আপনারা বিজেপিকে সমর্থন করেছেন ২০১৪ লোকসভা, ২০১৭ উত্তরপ্রদেশ নির্বাচন ও ২০১৯ লোকসভা ভোটে। এবার চতুর্থবার বিজেপিকে সমর্থন করে যোগী আদিত্যনাথকে ভোট দিন।' উল্লেখ্য, তাঁর বক্তব্যের শেষে বিজেপির চাণক্যের কণ্ঠে উঠে আসে 'জয় শ্রীরাম' ধ্বনি। প্রসঙ্গত, জনসভার আগে, অযোধ্যায় পা রেখে এদিন হনুমান গারহি মন্দিরে পুজো দেন অমিত শাহ। এছাড়াও রামমন্দির নির্মাণের কর্মপ্রক্রিয়ার প্রশংসা করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বন্ধ করুন