বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জেহাদের বার্তা! WhatsApp গ্রুপে পাকিস্তানের উসকানি, সন্দেহভাজন গ্রেফতার বিহারে
সদা সতর্ক ভারতের সুরক্ষাবাহিনী।  (ANI Photo) (Imran Nissar)

জেহাদের বার্তা! WhatsApp গ্রুপে পাকিস্তানের উসকানি, সন্দেহভাজন গ্রেফতার বিহারে

  • সেই আইকনের নীচে লেখা, বাংলাদেশের মুসলিমদের আমি আবেদন করছি ভারত বিজয়ের জন্য় প্রস্তুতি নিন। বাংলায় ও ইংরাজিতে লেখা এই বার্তা। দ্বিতীয় গ্রুপে ৮জন সদস্য রয়েছে। তার মধ্যে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের লোকও রয়েছে। প্রথম গ্রুপটিতে ভারত, পাকিস্তান, উপসাগরীয় দেশের লোকজন রয়েছেন।

অবনীশ কুমার

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পটনা পুলিশ ফের সন্ত্রাসবাদী সন্দেহে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। তার নাম মারগুব আহমেদ ড্যানিস ওরফে তাহির। ফুলওয়ারি শরিফ এলাকায় তার বাড়ি। তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। এসএসপি পটনা এমএস ধীলন জানিয়েছেন, বিদেশি শক্তির সহায়তায় ওই যুবক সাম্প্রদায়িক ও দেশ বিরোধী কার্যকলাপ চালাচ্ছিল বলে অভিযোগ। গাজওয়া-ই-হিন্দ সহ দুটি গ্রুপের সন্ধান তার মোবাইলে পাওয়া গিয়েছে। সেই গ্রুপে অন্তত ১৮১জন সদস্য রয়েছে।

প্রসঙ্গত এই গাজওয়া-ই-হিন্দ ২০১৭ সালে তৈরি হয়েছিল। ২০১৯ সালে জাকির মুসা নামে ওই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতাকে এনকাউন্টারে নিকেশ করেছিল সুরক্ষা বাহিনী। ওই সংগঠনের হোয়াটস অ্য়াপ গ্রুপে ভারতের যে ম্যাপ রয়েছে তা পুরো সবুজ। আর মাঝে পাকিস্তানের পতাকা।

সেই আইকনের নীচে লেখা, বাংলাদেশের মুসলিমদের আমি আবেদন করছি ভারত বিজয়ের জন্য় প্রস্তুতি নিন। বাংলায় ও ইংরাজিতে লেখা এই বার্তা। দ্বিতীয় গ্রুপে ৮জন সদস্য রয়েছে। তার মধ্যে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের লোকও রয়েছে। প্রথম গ্রুপটিতে ভারত, পাকিস্তান, উপসাগরীয় দেশের লোকজন রয়েছেন। এসএসপি জানিয়েছেন আর কী চাই! ওই গ্রুপটাও ফয়জান বলে এক পাক নাগরিক বানিয়েছে। ড্যানিশ বলছে দুটি গ্রুপেরই সে অ্যাডমিন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবক আরবে কাজ করত। লকডাউনের সময় দেশে ফিরে আসে। দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। ওই হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপের মাধ্যমে কাশ্মীরে নানা কর্মকাণ্ড, উসকানিমূলক বক্তব্য, স্লোগান ছড়িয়ে দেওয়া হত। মূলত যুবকরা যাতে জেহাদে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেজন্যই এই গ্রুপ। ২০২৩ সালে ডাইরেক্ট জেহাদের কথাও ঘোষণা করা হয়েছিল। কোথা থেকে তারা টাকা পাচ্ছে সেটা দেখার জন্য ইডির সহায়তা নেওয়া হবে।

 

বন্ধ করুন