বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ASI Fined in Gyanvapi Case: জ্ঞানবাপী মামলায় সময়মতো হলফনামা দিতে ব্যর্থ! ASI-কে ১০,০০০ টাকা জরিমানা আদালতের

ASI Fined in Gyanvapi Case: জ্ঞানবাপী মামলায় সময়মতো হলফনামা দিতে ব্যর্থ! ASI-কে ১০,০০০ টাকা জরিমানা আদালতের

জ্ঞানবাপী মসজিদ  (HT_PRINT)

মামলার ‘গুরুত্ব’ বিচার করে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়াকে জবাবি হলফনামা পেশ করার জন্য আরও ১০ দিন সময় দিল উচ্চ আদালত।

জ্ঞানবাপী মসজিদ মামলায় সময় মতো জবাবি হলফনামা দাখিল না করার জন্য আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করল এলাহাবাদ হাই কোর্ট। তবে এই মামলার ‘গুরুত্ব’ বিচার করে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়াকে জবাবি হলফনামা পেশ করার জন্য আরও ১০ দিন সময় দিল উচ্চ আদালত। এদিকে জরিমানার ১০ হাজার টাকা আইনি পরিষেবা কমিটিকে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

আদালত মঙ্গলবার এএসআই-কে জানায়, শুনানির পরবর্তী তারিখ, অর্থাৎ ৩১ অক্টোবরের আগে জমা করতে হবে জবাবি হলফনামা৷ বারাণসীর আঞ্জুমান ইন্তেজামিয়া মসজিদের একটি আবেদনের শুনানিকালে বিচারপতি প্রকাশ পাড়িয়া এই আদেশ দেন। এর আগে এএসআই-এর পক্ষে সওয়াল করা সিনিয়র অ্যাডভোকেট শশী প্রকাশ সিং এবং অ্যাডভোকেট মনোজ কুমার সিং হলফনামা জমা দেওয়ার জন্য আদালতের কাছে কমপক্ষে ছয় সপ্তাহ সময় চেয়েছিলেন। তবে এএসআই-এর ডিরেক্টর জেনারেল এর মাঝে অসুস্থ হয়ে যাওয়ার কারণে সময় মতো হলফানামা জমা দেওয়া যায়নি বলে জানান সংস্থার আইনজীবীরা।

এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর বারাণসী আদালতের তরফে জ্ঞানবাপী মসজিদের সমীক্ষা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়াকে। তবে নিম্ন আদালতের সেই নির্দেশের উপর ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিতাদেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। উল্লেখ্য, এই সংক্রান্ত মূল মামলাটি ১৯৯১ সালে করা হয়েছিল বারাণসী আদালতে। মামলাকারীর দাবি ছিল, জ্ঞানবাপী মসজিদের জমি কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরকে ‘ফিরিয়ে দেওয়া’ হোক। মামলাকারীদের দাবি ছিল, জ্ঞানবাপী মসজিদটি আদতে কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরেরই অংশ। এই আবহে বিচারপতি পাড়িয়া এএসআই ডিরেক্টরকে এই মামলায় ব্যক্তিগত ভাবে জবাবি হলফনামা পেশ করতে বলেছিলেন। তবে মাঝে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় এবং একটি অস্ত্রপচার হওয়ায় তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন।

এদিকে জ্ঞানবাপী শৃঙ্গার গৌরী মামলার শুনানিতে সম্মতি জানিয়েছিল বারাণসী জেলা আদালত। 'জ্ঞানবাপী মসজিদে শিবলিঙ্গ আছে', এমন দাবি করে সেখানে পুজো করার আবেদন জানিয়ে মামলা দায়ের হয়েছিল বারাণসী আদালতে। হিন্দু পক্ষের সেই দাবি খারিজ করে পালটা মামলার আবেদন জানানো হয়েছিল সেই মামলা সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছিল। পরে সুপ্রিম নির্দেশে সেই মামলা ফিরে আসে বারাণসী আদালতে। বারাণসী দায়রা আদালতে বিচারক একে বিশ্বেসের একক বেঞ্চ জানিয়ে দেয় যে হিন্দু পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলা এগোবে। মুসলিম পক্ষ অঞ্জুমানে ইন্তেজামিয়া কমিটির আবেদন খারিজ করেন বিচারক। জ্ঞানবাপী মসজিদ মামলায় বারাণসী জেলা আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে যায় আঞ্জুমান ইন্তেজামিয়া মসজিদ কমিটি। সেই চ্যালেঞঅজেরই শুনানি হচ্ছিল মঙ্গলবার।

বন্ধ করুন