বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘এটা ভারতের জয়’, জেল থেকে বেরিয়ে বললেন অর্ণব, আবার গ্রেফতারি আটকাতে আর্জি আদালতে
অর্ণব গোস্বামী (ছবি সৌজন্য বচ্চন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)
অর্ণব গোস্বামী (ছবি সৌজন্য বচ্চন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)

‘এটা ভারতের জয়’, জেল থেকে বেরিয়ে বললেন অর্ণব, আবার গ্রেফতারি আটকাতে আর্জি আদালতে

  • অপর একটি মামলায় গ্রেফতারি এড়াতে আদালতে গেলেন অর্ণব।

দ্রুত অর্ণব গোস্বামীকে জেল থেকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সেই নির্দেশের ঘণ্টাচারেকের মধ্যেই তালোজা জেল থেকে ছাড়া পেলেন রিপাবলিক টিভির এডিটর-ইন-চিফ।

ইন্টিরিয়র ডিজাইনার অন্বয় মালিক এবং তাঁর কুমুদ মালিকের আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলায় গত ৪ নভেম্বর অর্ণবকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। বম্বে হাইকোর্টে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আর্জি খারিজ হয়ে যাওয়ায় তাঁকে আটদিন জেলেই কাটাতে হয়। অবশেষে পাঁচ ঘণ্টার শুনানির পর মঙ্গলবার অর্ণবের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদন মঞ্জুর করে সুপ্রিম কোর্ট। অর্ণবের জামিনের খবর পেয়ে জেলের বাইরে প্রচুর মানুষ দাঁড়িয়েছিলেন। সেজন্য কড়া নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। মোতায়েন করা হয়েছিল পুরুষ এবং মহিলা পুলিশকে।

তারপর রাত সাড়ে আটটার সময় নবি মুম্বইয়ের তালোজা জেল থেকে বেরোন অর্ণব। আটদিনের মাথায় জেল থেকে বেরিয়ে গাড়ি থেকেই ‘ভিক্ট্রি’ চিহ্ন দেখান। গাড়ির মধ্যেই দাঁড়িয়ে পড়ে ‘ভারত মাতা কী জয়’, ‘বন্দেমাতরম’ স্লোগান দিচ্ছিলেন। পরে নিজের চ্যানেলেই বলেন, ‘এটা (নিজের জামিন পাওয়া) ভারতের জয়।’

জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছুক্ষণ আগেই অপর একটি মামলায় গ্রেফতারি আটকাতে মুম্বইয়ের একটি আদালতে আবেদন জানান অর্ণবের স্ত্রী সাম্যব্রত রায় গোস্বামী। ৪ নভেম্বর সকালে গ্রেফতারের জন্য যে পুলিশ আধিকারিকরা গিয়েছিলেন, তাঁদের হেনস্থার জন্য সেই ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। অর্ণব, তাঁর স্ত্রী, ছেলে এবং দু'জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে সেই অভিযোগ দায়ের করেছিলেন এক মহিলা পুলিশ আধিকারিক। যিনি অর্ণবকে গ্রেফতার করতে গিয়েছিলেন। যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অর্ণব। তিনি দাবি করেছিলেন, শুধুমাত্র ‘অবৈধ’ গ্রেফতারির প্রতিবাদ করেছিলেন তিনি।

বন্ধ করুন