আইবিএম-এর নতুন সিইও হিসেবে দায়িত্ব নিতে চলেছেন অরবিন্দ কৃষ্ণ।
আইবিএম-এর নতুন সিইও হিসেবে দায়িত্ব নিতে চলেছেন অরবিন্দ কৃষ্ণ।

IBM-এর সিইও পদে অরবিন্দ কৃষ্ণ, ঘোষণায় বাড়ল শেয়ারের দাম

বর্তমানে আইবিএম-এর ক্লাউড অ্যান্ড কগনিটিভ সফ্টওয়্যার ইউনিটের প্রধান পদে রয়েছেন বছর সাতান্নর কৃষ্ণ। ২০১৯ সালে রেড হ্যাট সংস্থা কেনার বিষয়ে আইবিএম-এর তরফে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

আইবিএম-এর নতুন চিফ একজিকিউটিভ অফিসার (সিইও) পদে নির্বাচিত হলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত অরবিন্দ কৃষ্ণ। তিনি সংস্থার দীর্ঘমেয়াদী সিইও ভার্জিনিয়া রমেট্টির স্থলাভিষিক্ত হলেন।

বর্তমানে আইবিএম-এর ক্লাউড অ্যান্ড কগনিটিভ সফ্টওয়্যার ইউনিটের প্রধান পদে রয়েছেন বছর সাতান্নর কৃষ্ণ। ২০১৯ সালে রেড হ্যাট সংস্থা কেনার বিষয়ে আইবিএম-এর তরফে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

অন্য দিকে, তাঁর পূর্বসূরি রমেট্টি (৬২) আইবিএম-এর একজিকিউটিভ চেয়ারম্যান হিসেবে চলতি বছরের শেষে তাঁর অবসর গ্রহণ পর্যন্ত দায়িত্বে বহাল থাকবেন বলে জানা গিয়েছে। তিনি গত প্রায় ৪০ বছর যাবত্ এই সংস্থায় কর্মরত রয়েছেন।

আইবিএম-এর এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে ‘বহু দিনের অবধারিত পরিবর্তন’ হিসেবে ব্যাখ্যা করেছেন ওয়েডবুশ সিকিউরিটিস ইনকর্পোরেটিভ সংস্থার বিশেষজ্ঞ মোশে কাটরি। তাঁর বক্তব্য, ‘বিষয়টি আমরা এ ভাবেই দেখছি এবং বাজারেও তার প্রতিফলন ঘটেচে। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার আইবিএম-এর নয়া ঘোষণার জেরে সংস্থার শেয়ারের দাম একলাফে প্রায় ৫% বেড়ে গিয়েছে।’

২০০৫ সালে নিজস্ব কম্পিউটার ব্যবসা ছেড়ে সে সময়ে প্রবল চাহিদা সৃষ্টিকারী ডেটা অ্যানালেটিক্স ও ক্লাউড কম্পিউটিং-এর মতো উচ্চ স্তরের পরিষেবা বিপণনকারী সংস্থা হিসেবে নিজেকে ধীরে ধীরে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয় আইবিএম।

রমেট্টি দায়িত্ব নেওয়ার আগে টানা ৬ বছর সংস্থার ব্যবসা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পায়নি। মূলত শেয়ার কেনাবেচার উপরেই নিজের বৃদ্ধির হার বাড়ানোয় মনোযোগী ছিল সংস্থা। এ ছাড়া, উত্পাদন খরচ কমিয়ে এবং ভিনদেশে কাজ বণ্টন প্রক্রিয়ার সাহায্যেও খরচ বেঁধে রাখায় উদ্যোগী হয় আইবিএম।

দায়িত্ব গ্রহণের পরে বেশ কিছু উচ্চাকাঙ্ক্ষামূলক পদক্ষেপ করেন রমেট্টি। এর মধ্যে প্রধান হয়ে ওঠে তাঁর ক্লাউড কম্পিউটিং প্রযুক্তি ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবসা বৃদ্ধির পরিকল্পনা।

২০১৮ সালে তাঁর উদ্যোগেই ৩৪ কোটি ডলার মূল্যে ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার প্রোভাইডার রেড হ্যাট সংস্থা কেনে আইবিএম। যদিও সেই পরিকল্পনা ঘোষণার পরে পর পর পাঁচটি ত্রৈমাসিকে আইবিএম-এর বৃদ্ধির হার নিম্নগামী হয়। তবে ২০১৯ সালের চতুর্থ ত্রৈমাসিকে সংস্থার ঘুরে দাঁড়ানোর আভাস মেলে।

সিইও-দের সাধারণ মেয়াদ অতিক্রম করে দীর্ঘ দিন আইবিএম-এর লাগাম থাকে রমেট্টির হাতেই। সংস্থার ইতিহাসে তিনি দ্বিতীয় সিইও, যিনি ৬০ বছর বয়স পেরিয়েও এই পদে বহাল ছিলেন। তাঁর আগে এই কৃতিত্ব অর্জন করেন শুধুমাত্র সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা টমাস ওয়াটসন।

রমেট্টির নেতৃত্বে রেড হ্যাট অধিগ্রহণ চুক্তির মূল কারিগর ছিলেন তাঁর উত্তরসূরি অরবিন্দ কৃষ্ণ। তিনিই রমেট্টির কাছে অধিগ্রহণের প্রস্তাব দিয়ে জানিয়েছিলেন যে, আগামী বৃদ্ধির জন্য হাইব্রিড ক্লাউড-এর উপরেই সংস্থার আস্থা রাখা উচিত। এ ছাড়া, আর্টিখিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ক্লাউড অ্যান্ড কোয়ান্টাম কম্পিউটিং-এর মতো আইবিএম-এর নতুন প্রযুক্তিগুলির উন্নয়নেও তাঁর অবদান সর্বজনবিদিত।

বৃহস্পতিবার একই সঙ্গে আইবিএম-এর নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষিত হয়েছে জিম হোয়াইটহার্স্টের নাম। তিনি বর্তমানে রেড হ্যাট সংস্থার সিইও পদে রয়েছেন।


বন্ধ করুন