বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনার বাড়বাড়ন্তে তিনদিন ‘জনতা কার্ফু’-র ঘোষণা এই জেলায়
করোনার বাড়বাড়ন্তে তিনদিন ‘জনতা কার্ফু’-র ঘোষণা জলগাঁতে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
করোনার বাড়বাড়ন্তে তিনদিন ‘জনতা কার্ফু’-র ঘোষণা জলগাঁতে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

করোনার বাড়বাড়ন্তে তিনদিন ‘জনতা কার্ফু’-র ঘোষণা এই জেলায়

  • ক্রমশ বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা।

ক্রমশ বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। সেই পরিস্থিতিতে সংক্রমণকে বাগে আনতে আগামিকাল (১১ মার্চ) থেকে মহারাষ্ট্রের জলগাঁও জেলায় তিনদিনের ‘জনতা কার্ফু’ ঘোষণা করা হল। এমনটাই জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই।

মঙ্গলবার জলগাঁওয়ের জেলাশাসক অভিজিৎ রাউত নির্দেশিকা জারি করে বলেছেন, '১১ মার্চ রাত আটটা থেকে ১৫ মার্চ (সোমবার) সকাল ৮ টা পর্যন্ত জনতা কার্ফু কার্যকর করা হবে।' ওই তিনদিন কড়া বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা, মহারাষ্ট্র পাবলিক সার্ভিস কমিশন এবং অন্যান্য দফতরের পরীক্ষায় ছাড় দেওয়া হবে। কেউ নির্দেশিকা লঙ্ঘন করে তাঁর বিরুদ্ধে মহামারী আইন এবং ভারতীয় দণ্ডবিধির উপযুক্ত ধারায় মামলা রুজু করা হবে।

গত কয়েকদিনে জলগাঁওতে করোনার সংক্রমণ মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শেষ দু'দিনে (রবিবার এবং সোমবার) ৯১০ জন করোনা আক্রান্ত হদিশ মিলেছে। ৭ মার্চ আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪৮৬ জন। পরদিন সেই সংখ্যাটা কিছুটা কমে দাঁড়ায় ৪২৪। তবে শুধু জলগাঁও নয়, মহারাষ্ট্রে আবারও করোনার বাড়বাড়ন্ত শুরু হযেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ৯,৯২৭ জন নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। তার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২,২৩৮,৩৯৮। ওই সময়ের মধ্যে ৫৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় মহারাষ্ট্রে করোনায় প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫২,৫৫৬। মঙ্গলবার পুণে এবং নাগপুরে সক্রিয় আক্রান্তের যথাক্রমে ১৮,১৩৭ জন এবং ১২,০০০ জনের বেশি আছে। তাও সেই সংখ্যাটা সোমবারের তুলনায় কম। ঔরঙ্গাবাদ, আকোলা, জলগাঁওয়ের (৪,৫৭৯) মতো জেলায় সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৪,০০০-এর বেশি থাকছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জলগাঁওতে ২৫০ জনের বেশি নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে।

বন্ধ করুন